kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী মতবিনিময় সভা

আব্দুর রাজ্জাক খান   

১৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী মতবিনিময় সভা

বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের সিঁড়ি দিয়ে হাঁটতে শুরু করেছে, ঠিক তখনই এই উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ। গ্রামের সহজ-সরল ছেলেমেয়ে থেকে শুরু করে শহরের নামিদামি বাংলা ও ইংরেজি মাধ্যমের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের কূটকৌশলের মাধ্যমে স্বার্থান্বেষী মহল জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত করছে।

তাই এ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর শিক্ষকরা যেমন উদ্বিগ্ন, তেমনি অভিভাবকরাও চিন্তিত। ’ শুভসংঘের সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী আলোচনা ও মতবিনিময় সভায় এ কথাগুলো বলছিলেন ইসরাইল মজুমদার স্কুল অ্যান্ড কলেজের চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মজুমদার।

সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরায় অবস্থিত ইসরাইল মজুমদার স্কুল অ্যান্ড কলেজ শাখা শুভসংঘের বন্ধুরা সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী আলোচনা ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন। প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মজুমদার আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।

প্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ ও শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা মো. মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন খাইরুল বাশার কামাল, সিরাজুল ইসলাম ও এশিয়ান ইউনিভার্সিটি শাখা শুভসংঘের সভাপতি মো. আব্দুর রাজ্জাক খানসহ শিক্ষকমণ্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষার্থী ও শুভসংঘের অন্য বন্ধুরা।

অধ্যক্ষ মো. মোজাম্মেল হক বলেন, মানুষ হত্যা মহাপাপ, তাই কোরআনে বলা আছে, ‘যে একজন লোককে হত্যা করল, সে যেন গোটা মানবজাতিকেই হত্যা করল। ’ তাই সবাইকে সচেতন হতে হবে, আমাদের সন্তানরা কোথায় যায়, কী করে, কার সঙ্গে মেশে, তার আচরণগত কোনো অস্বাভাবিক পরিবর্তন হচ্ছে কি না, সে ব্যাপারেও আমাদের তদারকি করতে হবে। পরিবার থেকে সন্তানদের পর্যাপ্ত সময় দিতে হবে। তাদের কাছাকাছি গিয়ে সমস্যা সম্পর্কে জানতে হবে।

তাহলে স্বার্থান্বেষী মহল ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে আমাদের সন্তানদের বিপথে নিয়ে যেতে পারবে না।


মন্তব্য