kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


একজন চন্দ্রাবতীর খোঁজে

ম. মুমিনুর রহমান

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



একজন চন্দ্রাবতীর খোঁজে

ত্রিশটি বসন্ত পেরিয়েছি। কিন্তু আজও আমি আমার ভালোবাসার মানুষকে খুঁজে পাইনি।

আজ মাঝেমধ্যে নিজেকে বড় একাকী ও নিঃসঙ্গ মনে হয়। বিপরীত লিঙ্গের ভালোবাসা যদি না-ই বা পেলাম, তবে কেন এ মানবজনম। মাঝেমধ্যে মনে হয়, এসব ভালোবাসা আমার জন্য নয়; অথবা কাউকে আকর্ষণ করার মতো সম্মোহনী ক্ষমতা আমার মাঝে নেই। তাই এ জন্য নিরাশ হই, হই বেদনায় মুহ্যমান। আমি হয়তো সুদর্শন না কিংবা আমার কোনো যোগ্যতাই নেই। তাই হয়তো কোনো তরুণী আমার প্রতি বিমোহিত হন না। আমার এ ত্রিশ বসন্তে দুজন তরুণীকে উদাত্তভাবে ভালোবেসেছি। কিন্তু দুজনের কাছ থেকেই প্রত্যাখ্যাত হয়েছি। এ না-পাওয়ার বেদনা আমাকে চরমভাবে হতাশ করেছিল। অনেকটা পিছিয়ে দিয়েছিল আমার জীবনের গতি।

স্বপ্নবাজ এ আমি আবারও ভালোবাসায় মন সঞ্চারিত করে স্বপ্ন দেখি কাউকে ভালোবাসার এবং তার হৃদয় উথালপাথাল করা ভালোবাসা পাওয়ার। আমি মনপবনের নাও সাজিয়ে, ভালোবাসায় মন রাঙিয়ে বসে আছি একজন চন্দ্রাবতীর জন্য। যে কিনা হবে আমার হৃদয়ের রাজেশ্বরী। যাকে ভালোবেসে আমৃত্যু নিজের করে রাখব। তার মন উথালপাথাল করা ভালোবাসায় মুগ্ধ এ আমি শুধু তাতেই হারাব। সে আমার আর আমি তার হয়ে থাকব আমরণ। যে আমার জীবনকে চন্দ্রালোকিত করে চন্দ্রাবতী হয়ে থাকবে আমার জীবনে।

একজন চন্দ্রাবতীর খোঁজেই আমার পথচলা। স্বাপ্নিক আমি হৃদয়ে কেবল স্বপ্নের জাল বুনি। প্রতিদিন পথে-প্রান্তরে কত সুদর্শনাকে দেখি। হয়তো কোনো এক মাহেন্দ্রক্ষণে কোনো সুদর্শনা চন্দ্রাবতী আমাতে ধরা দেবে। নির্মোহ ভালোবাসবে এ আমাকে। আমি উন্মুখ হয়ে বসে আছি একজন চন্দ্রাবতীর জন্য। গুরুদেব রবীন্দ্রনাথের ভাষায়, ‘আমি কান পেতে রই/ও আমার আপন হৃদয় গহন দ্বারে বারেবারে কান পেতে রই/কোন গোপন বাঁশির কান্না হাসির গোপন কথা শুনিবারে বারেবারে কান পেতে রই। ’

(বন্ধু নং ৫০২১৩) 


মন্তব্য