kalerkantho


গল্পে আর রংতুলিতে নদী

মো. মনির হোসেন   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



গল্পে আর রংতুলিতে নদী

সভ্যতার সৃষ্টি নদী থেকে। সংস্কৃতি আর কৃষ্টির সৃষ্টিও নদী থেকে। নদী ছাড়া প্রাণের অস্তিত্ব কল্পনা করা প্রায় অসম্ভব। আর এ অস্তিত্বের নদীকে বাঁচাতে সচেতনতার বিকল্প নেই। বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ। নদী বাঁচলে বাংলাদেশ বাঁচবে। নদী বিষয়ে সব পেশার মানুষের আরো বেশি সচেতনতা এখন সময়ের দাবি। এক শ্রেণির অসাধু মানুষের হাত থেকে নদী বাঁচাতে আরো বেশি সামাজিক আন্দোলন প্রয়োজন।

গত ২৯ ফেব্রুয়ারি গাজীপুর মেট্রোপলিটন স্কুল ও  শুভসংঘের আয়োজনে রং পেনসিলে নদীর কান্না শীর্ষক এক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। শিশু-কিশোরদের মধ্যে নদীবিষয়ক জাগরণ তৈরিতে গাজীপুর মেট্রোপলিটন স্কুলের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় অনুষ্ঠিত হলো নদীবিষয়ক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ‘এসো নদীর ছবি আঁকি’। শিশু-কিশোর আঁকিয়েরা রংতুলিতে ফুটিয়ে তুলল নদীর কান্না আর দুর্দশার গল্প। আয়োজনে শুভেচ্ছা বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বর্ণ-কিশোরী নেটওয়ার্ক ফাউন্ডেশনের বর্ষসেরা স্বর্ণ-কিশোরী শাহজিয়া শাহরিন আনিকা। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের সভাপতি মনির হোসেন, ধলাদিয়া ডিগ্রি কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের যুগ্ম সম্পাদক প্রকৌশলী জেমাম আহমেদ, অর্থ সম্পাদক মাহবুবা সুলতানা, গাজীপুর মেট্রোপলিটন স্কুলের প্রধান শিক্ষক আলহাজ শফিউদ্দিন মণ্ডল, বিদ্যালয়ের সমন্বয়কারী নিগার সুলতানা প্রমুখ।

গত ১০ জানুয়ারি কক্সবাজার  লিংক রোডের  ইলিয়াছ মিয়া চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ ও বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দল জেলা শাখার আয়োজনে ‘এসো নদীর গল্প শুনি’ নামের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। আবদুল আলীমের সভাপতিত্বে ও মিনার হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ নদী পরিব্রাজক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি ও নদী গবেষক মনির হোসেন।

এ ছাড়া বক্তব্য দেন কালের কণ্ঠ’র সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার তোফায়েল আহাম্মদ, শুভসংঘ জেলা আহ্বায়ক বিপ্লব কান্তি দে, সরওয়ার আলম, ইসলাম মাহমুদ, ইলিয়াছ মিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক মঈনুল ইসলাম, আ ন ম মাঈন উদ্দিন, কক্সবাজার সাংবাদিক সংসদের সভাপতি আজাদ মনছুর, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের জেলা মহাসচিব সৈয়দ মোহাম্মদ শাকিল, নদী পরিব্রাজক দলের জেলা সহসভাপতি আজিজ রাসেল, রাশেদুল আরাফাত প্রমুখ।


মন্তব্য