kalerkantho


প্রকৃতির রাজ্যে শুভসংঘের বন্ধুরা

আব্দুর রাজ্জাক খান   

২৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



প্রকৃতির রাজ্যে শুভসংঘের বন্ধুরা

বাকৃবি ঘুরে এলেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি শুভসংঘের বন্ধুরা

বিরামহীন ক্লাস ও সেমিস্টারভিত্তিক পরীক্ষা নিয়ে খুব বেশি ব্যস্ত থাকতে হয় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর শিক্ষার্থীদের। ফলে সময় হয়ে উঠে না বড় ধরনের কোনো আয়োজন করা কিংবা কোথাও ঘুরতে যাওয়া।

তবুও নগরের কোলাহল ও ব্যস্ততার আষ্টেপৃষ্ঠে বাঁধা জীবনকে একটুখানি স্বস্তি দিতে সম্প্রতি এশিয়ান ইউনিভার্সিটি শুভসংঘের (ইংরেজি বিভাগের) ৪০০ জন শিক্ষার্থী বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে এলেন। প্রকৃতির মাঝে ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে গড়ে ওঠা এই বিশ্ববিদ্যালয় ও তার চার পাশের প্রকৃতির কোমল স্পর্শে কিছু সময়ের জন্য হারিয়ে গিয়েছিলেন এশিয়ান ইউনিভার্সিটি শুভসংঘের বন্ধুরা।

সকাল ৯টায় রাজধানীর উত্তরা থেকে ময়মনসিংহ শহরের দিকে যাত্রা করা শিক্ষার্থীদের চোখেমুখে ছিল আনন্দের ফোয়ারা। সারাটা পথ যেতে যেতে চলল হৈ-হুল্লোড় আর নাচ-গান। কারো চোখেমুখে ক্লান্তির ছিটেফোঁটাও ছিল না। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছেই বোটানিক্যাল গার্ডেন ও ব্রহ্মপুত্র নদের জলরাশি পরিদর্শন করেন বন্ধুরা। আরো বেশ কিছু জায়গা ঘুরে দুপুরের খাবার খেয়ে নেন সবাই। কিছুক্ষণ বিশ্রাম শেষে শুরু হয় আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। বিকেলের পড়ন্ত সোনালি রোদের ছটা গায়ে লাগিয়ে নাচ, গান ও অভিনয়ে অংশ নেন বন্ধুরা।

শিক্ষকরাও সুরের মূর্ছনায় মুগ্ধ করেন সবাইকে।

পশ্চিমের সূর্যটা যখন ডুবুডুবু, তখন ফেরার পালা। আবার ফিরতে হবে ব্যস্ত নগরীতে। আবারও রুটিনমাফিক ক্লাস, পরীক্ষা আর অ্যাসাইনমেন্টের বাঁধাধরা নিয়মের বেড়াজালে। এই সত্য মেনেই ঢাকার পথে পা বাড়ান বন্ধুরা।

শিক্ষকদের মধ্যে এই ভ্রমণে উপস্থিত ছিলেন ইংরেজি বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর মোহাম্মদ মহসীন মিয়া, পরীক্ষা নিয়ামক মনিরুল ইসলাম সজীব, অ্যাসিসট্যান্ট প্রফেসর এস এম শামিম, রবিউল আলম, সামসি ফারজানা, জিয়াউল হক, লেকচারার আনোয়ার পারভেজ, মিজানুর রহমান ভুঁইয়া, মাহবুবুল হক প্রমুখ। শুভসংঘের মো. আবদুর রাজ্জাক খান, নাইম আলম, মহিউদ্দিন শ্রাবণ, মো. সেলিম, মো. আরিফ, ইসমাঈল হোসাইন রাজুসহ অন্য বন্ধুরা এই আয়োজনটি সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন।


মন্তব্য