kalerkantho


ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

ডারউইন দিবস উদ্যাপন করল শুভসংঘ

জাকারিয়া জামান   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ডারউইন দিবস উদ্যাপন করল শুভসংঘ

জীববিজ্ঞানের কেন্দ্রীয় ধারণা জৈব অভিব্যক্তির বৈজ্ঞানিক কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে দুনিয়া পাল্টে দেওয়া প্রাকৃতিক নির্বাচনতত্ত্বের সহ-প্রবক্তা হিসেবে বিশ্বখ্যাত হয়েছেন চার্লস রবার্ট ডারউইন। এই বিজ্ঞানী ও প্রকৃতিবিদের জন্মদিন ১২ ফেব্রুয়ারি। সারা বিশ্বের বিজ্ঞানপ্রেমী মানুষ ডারউইন দিবস হিসেবে এই দিনটি নানা উত্সব ও অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালন করে থাকে।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার পলাশীর ফ্রেপড মিলনায়তনে কালের কণ্ঠ শুভসংঘের সহযোগিতায় বাংলাদেশ জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াডের আয়োজনে এবং ল্যাব বাংলার কারিগরি সহায়তায় বাংলাদেশেও এবার উদ্যাপিত হলো ডারউইন দিবস। বিকেল সাড়ে ৩টায় বাংলাদেশ জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াডের সাধারণ সম্পাদক ডা. সৌমিত্র চক্রবর্তীর স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। তারপর ডারউইন ও জৈব অভিব্যক্তি তত্ত্ব সম্পর্কে আলোচনা করেন বাংলাদেশ জীববিজ্ঞান অলিমিপয়াডের প্রধান উপদেষ্টা, নিসর্গবিদ, সাহিত্যিক ও ডারউইন-বিশারদ দ্বিজেন শর্মা। তিনি বলেন, ডারউইনের তত্ত্ব কাজে লাগিয়ে স্বাস্থ্য, কৃষি, পরিবেশ ইত্যাদি ক্ষেত্রে যে বৈপ্লবিক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে তা আরো এগিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করতে হবে। মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্নোত্তর পর্ব শেষে বক্তব্য দেন অনুষ্ঠানের সভাপতি অধ্যাপক ড. রাখহরি সরকার। বক্তব্য শেষে কেক কেটে ডারউইনের জন্মদিন পালন করা হয়। সবশেষে ডারউইন দিবসের একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রায় অংশ নেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত শতাধিক এনজাইম (জীববিজ্ঞান অলিম্পিয়াডের স্বেচ্ছাসেবক), ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শুভসংঘের সদস্যরা, উপস্থিত শিক্ষার্থী ও সুধীবৃন্দ। শোভাযাত্রাটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা প্রদক্ষিণ করে আবার ফ্রেপড মিলনায়তনে এসে শেষ হয়। সবশেষে দ্বিতীয় জাতীয় জীববিজ্ঞান উত্সবের এনজাইমদের মধ্যে সনদপত্র বিতরণ করেন অধ্যাপক ড. রাখহরি সরকার। সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন তিনি।

ডারউইনের জন্ম ১৮০৯ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি। মৃত্যু ১৮৮২ সালের ১৯ এপ্রিল।


মন্তব্য