‘বাংলা ভাষা : বর্তমান প্রজন্মের-335211 | শুভসংঘ | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ১৪ আশ্বিন ১৪২৩ । ২৬ জিলহজ ১৪৩৭


‘বাংলা ভাষা : বর্তমান প্রজন্মের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা

নিয়ামুল কবীর সজল   

১৩ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



‘বাংলা ভাষা : বর্তমান প্রজন্মের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা

আলোচনা সভায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের একাংশ

‘আমরা যারা আজকে তরুণ, লেখাপড়ায় যুক্ত আছি, দেশের ভবিষ্যৎ কর্ণধার, আমাদেরকেই মাতৃভাষা চর্চায় আন্তরিকভাবে মনোযোগ দিতে হবে। বাংলায় লেখালেখি, কবিতা, গান, আবৃত্তির চর্চা বাড়াতে হবে। তাহলেই আগামী দিনে বাংলা ভাষা আরো সমৃদ্ধ হবে।’ ময়মনসিংহের সদর উপজেলার দাপুনিয়া হলি চাইল্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘বাংলা ভাষা : বর্তমান প্রজন্মের ভাবনা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বাংলা ভাষা নিয়ে নিজেদের ভাবনা প্রকাশ করতে গিয়ে শিক্ষার্থীরা এ কথাগুলো বলেন।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি বুধবার কলেজ ক্যাম্পাসে কালের কণ্ঠ ‘শুভসংঘ’ ময়মনসিংহের সহযোগিতায় এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনার সভার পাশাপাশি কলেজের শিক্ষার্থীরা ভাষার গান ও আবৃত্তি পরিবেশন করেন।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কলেজের অধ্যক্ষ মো. নাজমুল হোসাইন। আলোচনা সভা ও অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন কালের কণ্ঠ ময়মনসিংহের সাংবাদিক নিয়ামুল কবীর সজল। স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের পরিচালক শাহনুর রহমান রিপন। কলেজ শিক্ষকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য দেন সাইফুল্লাহ, আজিজুল হক, আল ইমরান, নুরুন্নবী কায়সার, আবু ফারাহ গাফফারী, মিশন তালুকদার ও হুমায়ুন কবীর।

সভার মূল আলোচক ছিলেন কলেজের শিক্ষার্থীরাই। শিক্ষার্থীরা নিজ উদ্যোগে মঞ্চে এসে নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করেন। কেউ কেউ তুলে ধরেন ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস। আবার কেউ বলেন বর্তমান প্রেক্ষিতে তাঁদের কী করণীয়? শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিজ্ঞান প্রথম বর্ষের গোলাম সারোয়ার, শরীফ আহম্মেদ, মানবিক বিভাগের শাকিল আহম্মেদ, আনোয়ার, রাজীব সেলিম প্রমুখ। কবিতা আবৃত্তি করেন তন্বী ও নাসিমা।

‘জন্ম আমার ধন্য হলো’ গানটি গেয়ে উপস্থিত সবাইকে মুগ্ধ করেন শাকিল আহম্মেদ। শিক্ষার্থী গোলাম সারওয়ার বলেন, মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটকে সক্রিয় করতে হবে। প্রয়োজনে জেলা পর্যায়েও এর শাখা বিস্তৃত করতে হবে। শরীফ আহম্মেদ বলেন, ‘এখনো আমরা অনেকে সাইনবোর্ড ও গাড়ির নম্বর প্লেটে ইংরেজি ব্যবহার করি। অথচ একটু সদিচ্ছা থাকলেই আমরা এ প্রবণতা থেকে বের হয়ে আসতে পারি।’ নাসিমা আক্তার বলেন, আজকে অনেক জায়গায়, বিশেষ করে কিছু ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ভুল ও বিকৃতভাবে বাংলা ভাষা উপস্থাপন করা হয়। বিষয়টি দুঃখজনক।

কলেজের রসায়ন বিভাগের প্রভাষক আজিজুল হাকিম বলেন, বাংলা ভাষায় উচ্চশিক্ষার সুযোগ তেমন নেই। এ ব্যাপারে সরকার ও শিক্ষাবিদদের ভাবতে হবে। বাংলা ভাষায় অধিক হারে জ্ঞান-বিজ্ঞানের বই প্রকাশ করতে হবে। বাংলা বিভাগের প্রভাষক আবু ফারাহ গাফফারী বলেন, ‘বাংলা ভাষার জন্য আমাদের সন্তানেরা প্রাণ দিয়েছে। বর্তমান প্রজন্মকে অবশ্যই সেই গৌরবময় ইতিহাস জানতে হবে।’ 

সভাপতির ভাষণে কলেজ অধ্যক্ষ নাজমুল হোসাইন বলেন, ভাষার মাসে এমন উদ্যোগ সময়োপযোগী। শিক্ষার্থীদের পড়াশোনার পাশাপাশি নিয়মিত পত্রিকা ও বই পড়ার আহ্বান জানান তিনি।

এ ছাড়া ভবিষ্যতে শুভসংঘের যেকোনো আয়োজনে এ কলেজ যুক্ত থাকবে বলে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন।

মন্তব্য