kalerkantho


কমলগঞ্জে বাল্যবিয়ে বন্ধ করলেন ইউএনও

নিজস্ব প্রতিবেদক, মৌলভীবাজার   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে একটি বাল্যবিয়ে বন্ধ হয়েছে। উপজেলার সমশেরনগর ইউনিয়নের বড়চেগ গ্রামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর সঙ্গে গত সোমবার আলীনগর ইউনিয়নের রেনু মিয়ার ছেলে সানুর মিয়ার বিয়ের দিন ধার্য ছিল। এ জন্য বাড়িঘর সাজানো থেকে শুরু করে কনের বাড়িতে বিয়ের তোরণও নির্মাণ করা হয়।

বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে কমলগঞ্জের ইউএনও থানার ওসিকে নিয়ে ওই বাড়িতে আকস্মিক অভিযান চালালে রক্ষা পায় মেয়েটি। সে বড়চেগ গ্রামের ইসমাইল মিয়ার মেয়ে ও সমশেরনগর হাজি মো. উস্তওয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

কনে স্কুলছাত্রী বলে বিয়েতে যেন কোনো ঝামেলা না হয়, তাই অবৈধভাবে একটি জন্ম নিবন্ধন সনদ বানানো হয়। এতে মেয়েটির জন্ম সাল লেখা হয় ২০০১। অথচ বিদ্যালয় রেজিস্ট্রার অনুযায়ী, ২০০৩ সালের ৩ জুলাই তার জন্ম।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বড়চেগ গ্রামে অভিযান চালান। এ সময় কমলগঞ্জ থানার ওসি মোক্তাদির হোসেন, সমশেরনগর ইউপি চেয়ারম্যান জুয়েল আহমদসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন। অভিযানে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন তৈরি করায় কনের বাবা ইসমাইল মিয়াকে আটক করা হয়।


মন্তব্য