kalerkantho


হবিগঞ্জে চারুকলা প্রদর্শনী

শিল্পীর আঁকা ছবিতে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



শিল্পীর আঁকা ছবিতে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা

হবিগঞ্জে শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা গ্যালারিতে চারুকলা প্রদর্শনীতে মুগ্ধ দর্শক। ছবি : কালের কণ্ঠ

প্রথমবারের মতো হবিগঞ্জে আয়োজন করা হয়েছে তিন দিনব্যাপী চারুকলা প্রদর্শনীর। জেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে গত সোমবার থেকে এ প্রদর্শনী শুরু হয়। শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা গ্যালারিতে সোমবার বিকেলে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার উপপরিচালক সফিউল আলম। নবীন আর প্রবীণ শিল্পীদের আঁকা ছবি নিয়ে এ প্রদর্শনীতে ব্যাপক সাড়া মিলেছে দর্শনার্থীদের। প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত চলবে প্রদর্শনী। এটি সবার জন্য উন্মুক্ত। আজ বুধবার বিতরণ করা হবে পুরস্কার।

সোমবার সন্ধ্যায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ব্যাপক উপস্থিতি। তাদের বেশির ভাগই স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী। অনেকে আবার তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে নিয়ে এসেছে। বিকেজিসি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রী রুমানা এ প্রদর্শনী দেখে রীতিমতো মুগ্ধ। সে জীবনে প্রথম এ ধরনের প্রদর্শনী দেখেছে। প্রদর্শনীতে নিজের ছবি স্থান পাওয়ায় উচ্ছ্বসিত অর্পিতা সাহা। পোস্টার কালার মাধ্যমে ভাবুক শিরোনামে আঁকা ছবির জন্য প্রথম স্থান অর্জনকারী প্রিয়া সূত্রধরও আনন্দে উদ্বেলিত। জলরং মাধ্যমে বাউলিয়ানা ছবি এঁকে দ্বিতীয় হয়েছে দীপ্ত আচার্য্য। তূর্য্য রায় পেনসিল স্কেচে ‘পাকিস্তানের লারকানা জেল থেকে ফেরার পথে দিল্লিতে বঙ্গবন্ধু’ ছবি একে হয়েছে যৌথভাবে দ্বিতীয়। ইয়াকুব আলী ক্রেয়ন পেনসিল মাধ্যমে বাংলাদশের প্রকৃতি ও পরিবহন শিরোনামে এবং জলরং মাধ্যমে শাশ্বত সিংহ নিসর্গ প্রকৃতি এঁকে যৌথভাবে হয়েছে তৃতীয়। আজ বুধবার তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেওয়া হবে।

প্রদর্শনীতে আসা দর্শনার্থীরা পুরস্কারপ্রাপ্ত ছবিগুলো মনোযোগ দিয়ে দেখছিল। তাদের কাছে বেশি আকর্ষণীয় ছিল প্রকৃতি ও জনজীবন নিয়ে আঁকা ছবিগুলো। মুক্তিযুদ্ধ, ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্ব, ভাষা আন্দোলন কিছুই বাদ যায়নি প্রদর্শনীতে।

জেলা সাংস্কৃতিক কর্মকর্তা অসিত বরণ দাশ গুপ্ত জানান, হবিগঞ্জে এ ধরনের প্রদর্শনীর আয়োজন এই প্রথম। এখানে তিন ধরনের অংশগ্রহণকারী রয়েছে। যেমন শিল্পকলা একাডেমির প্রশিক্ষণার্থী, জেলার নবীন চারুশিল্পী এবং জেলার বিশিষ্ট শিল্পী। যখন শিল্পকর্ম আহ্বান করা হয় তখন দুই শর ওপর ছবি আসে। পরে বাছাই কমিটি ৫২ জন শিল্পীর ১০৫টি ছবি বাছাই করে প্রদর্শনীতে স্থান দেয়।

তিনি আরো জানান, এই জেলার নবীন চারুশিল্পীদের প্রচার ও প্রসার এবং তাদের উৎসাহ দিতে বার্ষিক চারুকলা প্রদর্শনীর অংশ হিসেবে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।


মন্তব্য