kalerkantho

ঝুলন্ত অবস্থায় যুবকের লাশ উদ্ধার

কর্মচারীর হাতুড়ির আঘাতে নারী উদ্যোক্তা খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কর্মচারীর হাতুড়ির আঘাতে নারী উদ্যোক্তা খুন

লাকী আক্তার

নিজ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে কর্মচারীর হাতুড়ির আঘাতে লাকী আক্তার নামে এক নারী উদ্যোক্তা খুন হয়েছেন। সোমবার দিবাগত রাত ১টার দিকে নগরের হালিশহর আবাসিক এলাকার কে-ব্লক ৭ নম্বর সড়কের একটি দোকানের পেছন থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। চার সন্তানের জননী লাকী আক্তারের (৩০) স্বামী একজন শ্রীলঙ্কান নাগরিক বলে হালিশহর থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে।

লাকী আক্তারের বাড়ি বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জে। তবে ১২ বছর ধরে তিনি হালিশহর এলাকায় বসবাস করেন। তাঁর স্বামী শ্রীলঙ্কান নাগরিক নাস সু নাগাম নগরের ইপিজেড এলাকার একটি তৈরি পোশাক কারখানার কর্মকর্তা।

হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম ওবায়দুল হক কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সোমবার রাতে দোকানের এক কর্মচারী লোহার হাতুড়ি দিয়ে লাকীর মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই লাকীর মৃত্যু হয়। পুলিশ স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে রাতেই লাশ উদ্ধার করে।’

২৮ বছর বয়সী খালেদের বাড়ি কক্সবাজার জেলায়। তাঁকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানিয়েছেন থানার ওসি।

নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (পশ্চিম) ফারুকুল হক বলেন, ‘একটি ফাস্টফুডের দোকানের পেছনে লাকীর লাশ পড়েছিল। ওই দোকানের মালিকও লাকী। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, দোকানের ম্যানেজার খালেদ তাঁকে খুন করে পালিয়েছে। খুবই বীভৎসভাবে খুন করা হয়েছে।’

নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে ওসি জানিয়েছেন।

যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার : নগরের খুলশী থানার লালখানবাজার মতিঝর্না এলাকার টাংকির পাহাড়ে ইউসুফের বাড়িতে নুরুল কবির (৩২) নামে এক যুবকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশ স্থানীয় সূত্রে খবর পেয়ে বাসার দরজা ভেঙে মরদেহটি উদ্ধার করে।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নাসির উদ্দিন জানান, নুরুল কবিরের বাড়ি ফেনী। মতিঝর্না এলাকায় ভাড়া বাসায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে।

মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি নাসির।

মন্তব্য