kalerkantho


সীতাকুণ্ড

ভাইস চেয়ারম্যানে জম্পেশ প্রচার

সৌমিত্র চক্রবর্তী, সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম)   

১৫ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০



ভাইস চেয়ারম্যানে জম্পেশ প্রচার

বাঁ থেকে : বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান এস এম আল মামুন, ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলাউদ্দিন ছাবেরী, মোহাম্মদ ইউনুছ, মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম (উপরে) ও কাজী গোলাম মহিউদ্দিন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জয়নব বিবি জুলি, কামরুন্নাহার নিলু ও রহিমা আক্তার ডলি।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সীতাকুণ্ডে ভাইস চেয়ারম্যানের দুটি পদে নির্বাচন হচ্ছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন সাত প্রার্থী। তাঁরা দিনরাত প্রচারে ব্যস্ত। আগামী ১৮ মার্চ এখানে ভোটগ্রহণ।

চেয়ারম্যান পদে আর কোনো প্রার্থী না থাকায় সীতাকুণ্ডে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম আল মামুনকে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। অন্যদিকে ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সরকার দলীয় ৭ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাঁরা হলেন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা আলাউদ্দিন ছাবেরী, মোহাম্মদ ইউনুছ, মুক্তিযোদ্ধা মনিরুল ইসলাম ও কাজী গোলাম মহিউদ্দিন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জয়নব বিবি জুলি, কামরুন্নাহার নিলু ও রহিমা আক্তার ডলি।

জানা গেছে, প্রথমে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা ছিল সবকটি পদে দলীয় একক প্রার্থী দেওয়া হবে। সেই নির্দেশ পেয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান পদে এস এম আল মামুন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আলাউদ্দিন ছাবেরী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জয়নব বিবি জলিকে প্রার্থী ঘোষণা করে কেন্দ্রে তালিকা পাঠায়। কিন্তু পরবর্তীতে দল ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদ উন্মুক্ত করে দেওয়ায় অন্য প্রার্থীরাও মাঠে নেমেছেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলা চেয়ারম্যান মামুন নির্বাচিত হয়ে যাওয়ায় তিনি মাঠে না থাকলেও অন্য পদের প্রার্থীরা দিনরাত উপজেলার এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ছুটে বেড়াচ্ছেন। সকলেই নিজের অবস্থান, সামাজিক কর্মকাণ্ড, পারিবারিক অবস্থান ও অবদান তুলে ধরে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

আলাপাকালে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আলাউদ্দিন আল-ছাবেরী, মনিরুল ইসলাম, ইউনুছ ও গোলাম মহিউদ্দিন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জয়নব বিবি জলি ও নিলু প্রত্যেকেই বিভিন্ন কারণে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীর চেয়ে নিজেকে এগিয়ে রেখে নির্বাচনী বিজয়ী হওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার মিল্টন রায় বলেন, ‘প্রার্থীরা জম্পেশ প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন। প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকলেও তাঁরা কেউ কারো বিরুদ্ধে লিখিত কোনো অভিযোগ করেননি এখনো। একটি অবাধ-সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।’



মন্তব্য