kalerkantho


আ. লীগে ‘একক প্রার্থী’ হাছান মাহমুদ

বিএনপিতে লুকোচুরি এলডিপির নুরুল আলম আলোচনায়

জিগারুল ইসলাম, রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম)   

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বিএনপিতে লুকোচুরি এলডিপির নুরুল আলম আলোচনায়

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-৭ আসনে রাঙ্গুনিয়ার ১৫ ইউনিয়ন ও এক পৌরসভার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে পাশের বোয়ালখালী উপজেলার শ্রীপুর-খরণদ্বীপ ইউনিয়ন। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের মনোনয়ন অনেকটা নিশ্চিত বলে দলীয় সূত্র জানিয়েছে।

২০০৮ সালের প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে বিএনপির ‘হেভিওয়েট’ প্রার্থী, যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসির দণ্ড কার্যকর হওয়া সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে ৩১ হাজার ভোটের ব্যবধানে হারিয়ে বিএনপির ‘দুর্গ’ ভাঙেন আওয়ামী লীগের ‘হেভিওয়েট’ নেতা হাছান মাহমুদ। তিনি ছাড়া এখানে দলের অন্য কারো মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ বলে মনে করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার।

অপরদিকে বিএনপির মনোনয়নযুদ্ধে নেমেছেন ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকসহ ১৪ নেতা। এঁদের বাইরে ২০ দলীয় জোটভুক্ত এলডিপি নেতা সাবেক এমপি নুরুল আলম জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন এ আসনে প্রার্থী হতে। মাঠেও তিনি বেশ আলোচনায় রয়েছেন।

রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপির একাংশের যুগ্ম আহ্বায়ক অধ্যাপক মহসিন জানান, কয়েকমাস আগে অন্যের মোবাইল ফোন থেকে কয়েক মিনিট কথা হলেও গিয়াস কাদেরের সঙ্গে আর যোগাযোগ হয়নি তাঁর। তিনি কোথায় কি অবস্থায় আছেন জানেন না কেউ। রাঙ্গুনিয়া থেকে তিনি নির্বাচন করবেন এমন আলোচনাও তাঁর সঙ্গে হয়নি।

চৌধুরী পরিবার থেকে দলের প্রার্থী কে হচ্ছেন তা নিশ্চিত জানেন না রাঙ্গুনিয়া পৌরসভা বিএনপির সিনিয়ির যুগ্ম আহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন শাহ।

রাঙ্গুনিয়ার কয়েকজন বিএনপি নেতার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ফাঁসি কার্যকর হওয়ার পর চৌধুরী পরিবারের অভ্যন্তরেও চাচা-ভাতিজার দ্বন্দ্ব রয়েছে এমন খবর প্রচার আছে নেতাকর্মীদের মাঝে। ওই পরিবারের বাইরেও স্থানীয় বিএনপিতে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে বেশ কয়েকজন দলের শীর্ষ পর্যায়ে তদবির করছেন বলে জানা গেছে। এঁদের মধ্যে শিল্পপতি ইলিয়াছ চৌধুরী, আবু আহমেদ হাসনাত, অধ্যাপক কুতুব উদ্দিন বাহার প্রমুখ আলোচনায় রয়েছেন।

তবে বিএনপির সবাইকে ছাপিয়ে সরব আলোচনায় উঠে এসেছেন ২০ দলীয় জোটের শরীক এলডিপির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক এমপি মো. নুরুল আলমের নাম। তিনি জোটের প্রার্থী হয়ে ধানের শীষে নির্বাচন করতে তৎপরতা চালাচ্ছেন। আশির দশক থেকে রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপিকে সাংগঠনিকভাবে রূপ দিতে তিনি নিরলস কাজ করেছেন। রাঙ্গুনিয়ায় বিএনপির অন্যতম এই প্রতিষ্ঠাতা ১৯৯১ সালে ৫ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে লড়েছেন। তিনি এখন কর্নেল অলি আহমদের এলডিপির প্রেসিডিয়াম মেম্বার।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা এলডিপির সিনিয়র সহসভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল কাদের তালুকদার মনোনয়ন বাগিয়ে আনতে তাঁরা অনেকদুর এগিয়েছেন জানিয়ে বলেন, ‘রাঙ্গুনিয়ার রাজনীতিতে নুরুল আলম একটা আইডল।’

এদিকে আজ মঙ্গলবার বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীরা দলের গুলশান কার্যালয়ে সাক্ষাৎকার দেবেন। তবে হুম্মাম কাদের এখনো দেশের বাইরে অবস্থান করায় প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়ে তাঁর অনুসারীরা অনেকটা লুকোচুরির মধ্যে থাকলেও উত্তর জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহসভাপতি আনছুর উদ্দিন জানান, হুম্মাম কাদেরের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তিনি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে সঠিক সময়ে দেশে ফিরে মাঠে নামবেন।



মন্তব্য