kalerkantho


আয়কর মেলা আজ থেকে

বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৩৯ সেরা করদাতা পেলেন সম্মাননা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৩৯ সেরা করদাতা পেলেন সম্মাননা

চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগের অনুষ্ঠানে অতিথিদের সঙ্গে সেরা করদাতা ও তাঁদের প্রতিনিধিরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, চট্টগ্রাম জেলা, কক্সবাজার, বান্দরবান, রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলার ৩৯ জন সেরা করদাতাকে সম্মাননা দিয়েছে চট্টগ্রাম আয়কর বিভাগ। গত বছরের মতো এবারও ‘দীর্ঘসময় ধরে করদাতা’, ‘সর্বোচ্চ করদাতা’, ‘সর্বোচ্চ নারী করদাতা’ ও ‘সর্বোচ্চ তরুণ করদাতা’-এই চার শ্রেণিতে তাঁদের সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।

গতকাল সোমবার দুপুরে নগরের জিইসি কনভেনশন হলে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন এলাকায় ২০১৭-১৮ করবর্ষে দীর্ঘসময় করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন আবদুল মোতালেব ও এস এ এম শাহজাহান। আর সর্বোচ্চ করদাতার সম্মাননা এবারও অক্ষুণ্ন রেখেছেন এ কে খান গ্রুপের কর্ণধার সালাউদ্দিন কাশেম খান ও বিএসআরএম গ্রুপের কর্ণধার আলী হোসেন আকবরআলী। এ ছাড়া এই শ্রেণিতে রয়েছেন ফল ব্যবসায়ী মোহাম্মদ কামাল। আর সর্বোচ্চ নারী করদাতা হয়েছেন আবদুল মোনেম গ্রুপের ফারহানা মোনেম এবং ৪০ বছরের নিচে তরুণদের মধ্যে সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন মো. শাহাদাত হোসেন।

সিটি করপোরেশনের বাইরে চট্টগ্রাম জেলায় দীর্ঘসময় করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন আরামিট লিমিটেডের নির্বাহী পরিচালক বিশ্বেশ্বর গুপ্ত, বেক্সিমকো লিমিটেডের কর্মকর্তা সদরে আলা। সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন এনজিএস গ্রুপের অসিত কুমার সাহা, মো. দিদারুল আলম ও মোহাম্মদ আবদুল মালেক। নারী বিভাগে বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশের কর্মকর্তা রূপালী হক চৌধুরী এবং তরুণ বিভাগে আশিকুর রহমান লস্কর সেরা হয়েছেন।

কক্সবাজার জেলায় দীর্ঘসময় করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন জুয়েলারি ব্যবসায়ী ওসমান গণি ও ব্যবসায়ী হাফিজুল ইসলাম। সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন ওকেএম ফুড প্রোডাক্টসের কামরুন নাহার ও তামান্না কনস্ট্রাকশনের মোহাম্মদ আবু কাউসার এবং প্রমিনেন্ট ইঞ্জিনিয়ার্সের মালিক প্রকৌশলী মো. আলমগীর। আর নারী বিভাগে লাইলা বেগম এবং তরুণ বিভাগে আবদুল মাবুদ চৌধুরী।

রাঙামাটিতে দীর্ঘসময় করদাতার সম্মাননা পেয়েছেন রবীন্দ্র লাল দে ও মাধব নাগ। সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন লোকমান হোসেন তালুকদার, আবুল মনসুর ওবায়দৌল্লা ও সুলতান কামরুদ্দিন। নারী বিভাগে চিত্রা চাকমা এবং তরুণ বিভাগে মো. আসাদুজ্জামান মহসিন।

বান্দরবানে দীর্ঘসময় করদাতার সম্মাননা পাননি কেউ। আর সর্বোচ্চ করদাতা হয়েছেন মোহাম্মদ নুরুল আবছার, অমল কান্তি দাশ, মাহবুবুর রহমান এবং নারী বিভাগে মে হ্লা প্রু।

খাগড়াছড়িতে দীর্ঘসময় বিভাগে সেরা হয়েছেন স্বপন চন্দ্র দেবনাথ, মো. শামসুল আলম, সর্বোচ্চ বিভাগে ফরিদা আকতার, স্বপন চন্দ্র দেবনাথ, শিব শংকর দেব, নারী বিভাগে নুর নাহার বেগম এবং তরুণ বিভাগে মো. আবুল কালাম।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন সেরা করদাতা ও তাঁদের প্রতিনিধিদের হাতে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (কর আপিল ও অব্যাহতি) রওশন আরা আক্তার বলেন, ‘মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া আয়কর মেলার মূল লক্ষ্য রাজস্ব আদায় বাড়ানো। দেশের বড় একটি অংশ করের আওতার বাইরে। তাঁদের উদ্বুদ্ধ করতে চাই আমরা।’

বিশেষ অতিথি চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ‘একজন ভালো ব্যবসায়ী কর দিতে সচেষ্ট থাকেন। কর না দিলে অবকাঠামোগত উন্নয়ন হবে না। দেশ এগিয়ে যাবে না। দেশকে এগিয়ে নিতে সরকারি কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ীরা কাজ করছেন। মাইন্ডসেট পরিবর্তন করতে হবে। কর-জাল বাড়াতে হবে। ৩০-৪০ লাখের জায়গায় দেড় কোটি মানুষকে করদাতা করতে হবে।’

চট্টগ্রাম কর অঞ্চল ১-এর কমিশনার মো. মোতাহের হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন কাস্টম এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট চট্টগ্রামের কমিশনার সৈয়দ গোলাম কিবরীয়া, চট্টগ্রাম উইম্যান চেম্বারের সিনিয়র সহসভাপতি আবিদা মোস্তফা, চট্টগ্রাম কর অঞ্চল-২ এর কমিশনার হারুন অর রশীদ, কর অঞ্চল-৩ এর কমিশনার মো. মাহবুবুর রহমান, কর অঞ্চল-৪ এর কমিশনার মো. লুত্ফুল আজীম, কর আপিলাত ট্রাইব্যুনাল দ্বৈত বেঞ্চের সদস্য মো. ইকবাল হোসেন, ট্যাক্সেস আপিলাত ট্রাইব্যুনালের সদস্য সৈয়দ মো. আবু দাউদ, কর আপিল অঞ্চলের কমিশনার নাজমুল করিম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের অধ্যাপক এম এ আক্কাস প্রমুখ।



মন্তব্য