kalerkantho


বেগমগঞ্জে যুবককে কুপিয়ে হত্যা

লোহাগাড়ায় দোকানে কর্মচারীর লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম ও নোয়াখালী প্রতিনিধি   

১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ এলাকার একটি ফার্নিচার দোকানের ভেতর থেকে মো. রিফাতুল ইসলাম (১৮) নামে এক কর্মচারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আমিরাবাদের গোলাম নবী হাজীরপাড়া থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

মো. রিফাতুল ইসলাম বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার আজিজনগর এলাকার জাফর হোসেনের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে লোহাগাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল জলিল বলেন, আমিরাবাদের গোলাম নবী হাজীর পাড়া এলাকার একটি ফার্নিচার দোকান থেকে মো. রিফাতুল ইসলাম নামে এক কর্মচারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

আবদুল জলিল বলেন, মো. রিফাতুল ইসলামের পকেটে একটি হাতে লেখা চিরকুট পাওয়া গেছে। চিরকুটে লেখা ছিল ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’। এটি হত্যা নাকি আত্মহত্যা তা আমরা তদন্ত করছি।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা।

নোয়াখালী : বেগমগঞ্জ উপজেলার বেগমগঞ্জ ইউনিয়নে মো. সোহাগ (৩১) নামে এক যুবককে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করার অভিযোগ ওঠেছে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে।

গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে আমানতপুর গ্রামের ফরাজী বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। নিহত মো. সোহাগ ওই বাড়ির সেলিম উল্যার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আমানতপুর গ্রামে নিজের বাড়ির পাশে তাঁর চাচার দুটি মাছের প্রজেক্ট দেখাশোনা করতেন সোহাগ। তাঁদের ওই প্রজেক্টের পাশে জিরতলী ইউনিয়নের মজুমদারহাট এলাকার কালাম নামে একজনের একটি মাছের প্রজেক্ট ছিল। বুধবার রাত ১০টার দিকে কালামের প্রজেক্ট থেকে সোহাগ মাছ ধরেছেন অভিযোগ তুলে সোহাগের সাথে কালাম ও তাঁর লোকজনের কথা কাটাকাটি হয়।

এর জের ধরে বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে কালামের প্রজেক্টের কর্মচারী রুবেলসহ কয়েকজন সোহাগের বাড়ির সামনে এসে তাঁর উপর অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় তাঁরা সোহাগকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে ফেলে যান। পরে স্থানীয় লোকজন সোহাগকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বেগমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বৃহস্পতিবার বিকেলে বলেন, ‘কালামের কর্মচারী রুবেলের নেতৃত্বে এ হত্যার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’



মন্তব্য