kalerkantho


যুবলীগকর্মী মহিউদ্দিন হত্যা

সেই আ. লীগ নেতা হাজি ইকবাল কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



নগরের বন্দর থানা এলাকার যুবলীগকর্মী মহিউদ্দিন হত্যা মামলায় জড়িত বিতর্কিত আওয়ামী লীগ নেতা হাজি ইকবালকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মহিউদ্দিন মুরাদের আদালতে আত্মসমর্পণ করে তিনি জামিন আবেদন করেন। আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

হাজি ইকবাল কারাগারে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ‘মহিউদ্দিন হত্যা মামলায় হাজি ইকবাল প্রায় ছয় মাস পলাতক ছিলেন। সোমবার তিনি আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে আসামিকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।’

গত ২৬ মার্চ বন্দর থানার হালিশহর মেহের আফজল উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজনের জন্য একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান শিক্ষকের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত ওই সভায় অন্যদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগকর্মী মহিউদ্দিন। সেই সভায় গিয়েছিলেন হাজি ইকবাল ও তাঁর অনুসারীরা। সভায় দুপক্ষের মধ্যে তর্কের এক পর্যায়ে প্রধান শিক্ষকের কক্ষেই মহিউদ্দিনকে কুপিয়ে হত্যা করে আসামিরা। এ ঘটনায় মহিউদ্দিনের মা নূর নেছা বেগম বাদী হয়ে হাজি ইকবালসহ ১৭ জনকে আসামি করে মামলা করেন। পুলিশ মামলার তদন্ত শেষে ২২ জুলাই ২০ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে।

প্রসঙ্গত, বিতর্কিত কর্মকাণ্ডের জন্য হাজি ইকবাল আওয়ামী লীগে সমালোচিত নেতা। বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে একটি অনুষ্ঠানে ‘হায় মুজিব’ ‘হায় মুজিব’ বলে আর্তচিৎকার করতে করতে নিজের পিঠে খঞ্জর দিয়ে আঘাত করে সমালোচিত হয়েছিলেন ইকবাল। এ ছাড়া জমি দখলসহ নানা ধরনের অপকর্মের অভিযোগ ওঠায় হাজি ইকবালকে বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। এরপরও তিনি আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন।

 



মন্তব্য