kalerkantho


পাহাড়ে আদিবাসী দিবস পালন

‘আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি চাই’

দ্বিতীয় রাজধানী ডেস্ক   

১০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



‘আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি চাই’

বান্দরবান শহরে শোভাযাত্রা। ছবি : কালের কণ্ঠ

আন্তর্জাতিক আদিবাসী দিবস উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার বিভিন্ন স্থানে নানা কমসূচি পালিত হয়েছে। বিস্তারিত নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধির পাঠানো খবরে :

বান্দরবান : শোভাযাত্রা, আলোচনাসভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বান্দরবান আদিবাসী দিবস উদযাপন পরিষদ এসব কর্মসূচির আয়োজন করে। পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত ১১টি ক্ষুদ্র জাতিসত্তার প্রতিনিধিরা এতে অংশ নেন।

বৃহস্পতিবার সকালে বান্দরবান পুরাতন রাজবাড়ি প্রাঙ্গণ থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে অরুণ সারকী টাউন হলে এসে শেষ হয় এটি। পরে টাউন হলে আলোচনাসভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোক প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক হোসাইন কবির প্রধান অতিথি ছিলেন।

উদযাপন পরিষদের আহ্বায়ক জলি মং মারমার সভাপতিত্বে আলোচনাসভায় পার্বত্য চট্টগ্রাম আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য কে এস মং, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান থোয়াইং চ প্রু বক্তব্য দেন।

খাগড়াছড়ি : নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আদিবাসী দিবস পালিত হয়েছে। এ সময় আদিবাসীদের ভূমি অধিকার ও সংবিধানে আদিবাসী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবি জানানো হয়।

এদিকে আদিবাসী স্বীকৃতির দাবি সংক্রান্ত সকল অপপ্রচার বন্ধের দাবিতে খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন করেছে পার্বত্য অধিকার ফোরাম ও বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম বাঙালি ছাত্র পরিষদ।

বৃহস্পতিবার সকালে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) উদ্যোগে শহরের খাগড়াপুর কমিউনিটি সেন্টারে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জনসংহতি সমিতির রাজনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক বিভু রঞ্জন চাকমার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় তথ্য ও প্রচার বিষয়ক সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা, যুব বিষয়ক সম্পাদক রণ জীবন চাকমা, কেন্দ্রীয় মহিলা সমিতির সহ-সাধারণ সম্পাদক ববিতা চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি সুমেধ চাকমা, তুষার চাকমা প্রমুখ।

এর আগে শহরের মহিলা কলেজ এলাকা থেকে আদিবাসী দিবস উপলক্ষে শোভাযাত্রা বের করা হয়। বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, মারমা স্টুডেন্ট কাউন্সিল, ত্রিপুরা স্টুডেন্ট কাউন্সিল ও ওয়াইডাব্লিউসিএ-এর যৌথ উদ্যোগে শোভাযাত্রা বের করা হয়। এটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে শহীদ কাদের সড়ক এলাকায় আলোচনাসভা করে।

সভায় আদিবাসী ফোরামের খাগড়াছড়ি শাখার সমন্বয়ক চাইথোয়াই মারমার সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন নারী অধিকার নেত্রী নমিতা চাকমা, প্রতিমা রোয়াজা, ক্যউপ্রু মারমা, মংচিংহ্লা মারমা, মাপ্রু মারমা প্রমুখ।

এদিকে আদিবাসী স্বীকৃতির দাবি সংক্রান্ত সকল অপপ্রচার বন্ধের দাবিতে গতকাল সকালে খাগড়াছড়িতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। খাগড়াছড়ি শাপলা চত্বরে এই মানববন্ধন আয়োজন করে পার্বত্য অধিকার ফোরাম ও বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম বাঙালি ছাত্র পরিষদ। এতে বক্তব্য দেন পার্বত্য অধিকার ফোরাম ও বাঙালি ছাত্র পরিষদের সভাপতি মো. মাঈন উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক এস এম মাসুম রানা, মো. জাহিদুল ইসলাম,  মোক্তাবির হোসেন, আলামিন হোসেন, মো. সাদ্দাম হোসেন, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, দেশে কোনো আদিবাসী না থাকা সত্ত্বেও একটি শ্রেণি নিজেদের আদিবাসী দাবি করে রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে।

দীঘিনালা : ‘আদিবাসী উদ্‌যাপন কমিটি’র ব্যানারে নানা আয়োজনে আদিবাসী দিবস পালন করা হয়েছে। সমাবেশের আগে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। সকাল ১০টার দিকে উপজেলার বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নবকমল চাকমার নেতৃত্বে শোভাযাত্রা বের হয়ে দীঘিনালা ডিগ্রি কলেজের পিছনে জেএসএস (জনসংহতি সমিতি) কার্যালয়ে গিয়ে সমাবেশে মিলিত হয়। জেএসএস (এমএন লারমা) উপজেলা শাখার সভাপতি মৃণাল কান্তি চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাংগঠনিক সম্পাদক প্রফুল্ল কুমার চাকমা। বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য প্রীতিময় চাকমা, উপজেলা শাখার সহসভাপতি শান্তিলোচন চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক এবং বোয়ালখালী (সদর) ইউপি চেয়ারম্যান চয়ন বিকাশ চাকমা ওরফে কালাধন, সদস্য সমীর চাকমা, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সুসময় চাকমা, চাকমা সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর পরিচালক আনন্দমোহন চাকমা প্রমুখ।

খাগড়াছড়িতে আদিবাসী ফোরামের মানববন্ধন।         ছবি : কালের কণ্ঠ



মন্তব্য