kalerkantho


পোর্ট কানেকটিং-এক্সেস রোড

যানজট নিরসনে একপাশ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৫ জুন, ২০১৮ ০০:০০



নগরের পোর্ট কানেকটিং রোড ও আগ্রাবাদ এক্সেস রোডে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) চলমান উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ দ্রুত সময়ের মধ্যে শেষ করার সুবিধার্থে ঈদের পরেই ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক আয়োজনের উদ্যোগ নিয়েছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

বৃহস্পতিবার মেয়রের দপ্তরে সিটি মেয়র ও চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমানের সঙ্গে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এ সময় সিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) কুসুম দেওয়ান, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মাসুদুল হাসান ও চসিক প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং পরিবহন মালিক সমিতির নেতাদের নিয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ‘পোর্ট কানেকটিং রোডে ব্যবসায়ীরা ক্যারেটগুলো দোকানে না রেখে রাস্তায় ফেলে রাখে। এতে রাস্তার অনেক জায়গা তাদের দখলে চলে যায়। আবার এ ক্যারেট লোডিং-আনলোডিং করার সময় ট্রাকগুলো রাস্তায় পার্কিং অবস্থায় থাকে। তাই এ সড়কে যানজট সৃষ্টির এটা একটি অন্যতম কারণ।’

এ প্রসঙ্গে সিটি মেয়র ব্যবসায়ীদের ক্যারেট রেখে রাস্তা দখল করার মানসিকতা পরিহার এবং অবৈধ পার্কিং সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন। মেয়র  আরও বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন জাইকার অর্থায়নে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে পোর্ট কানেকটিং রোড এবং আগ্রাবাদ এক্সেস রোডকে ছয় লেনে উন্নীতকরণে কাজ শুরু করেছে। এ উন্নয়ন কর্মকাণ্ড আগামী ২০১৯ সালের মে পর্যন্ত চলবে। তাই দ্রুত সংস্কার ও উন্নয়ন কাজ সম্পন্ন করার সুবিধার্থে আপাতত সড়কের একপাশ বন্ধ রাখা হবে।’

তিনি সড়কে বন্দরের পণ্যবাহী অতিরিক্ত যান পরিবহনের বিষয়টির কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘দৈনিক ৭/৮ হাজার পণ্যবাহী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান বা প্রাইম মুভার গাড়ি বন্দর থেকে বের হয়। কিন্তু এ পরিমাণ গাড়ি চলার মত আয়তন বা পরিস্থিতি এ সড়কের নেই। কাজেই যানজট লেগেই রয়েছে। ছয় লেনে উন্নীতকরণ কাজ সম্পন্ন হলে এ সড়কে সৃষ্ট যানজট সমস্যা নিরসন হবে।’



মন্তব্য