kalerkantho

বৃষ্টির কারণে দামে ধস

আমের কেজি ৪০ টাকা

আসিফ সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম   

১৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ফলের সবচেয়ে বড় পাইকারি আড়ত চট্টগ্রামের ফলমণ্ডিতে প্রতিকেজি ল্যাংড়া ও হিমসাগর আম পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায়! আর গুটি জাতের আম মাত্র ২৫ টাকা।  তিনদিন আগে একই আম বিক্রি হয়েছে দ্বিগুণ দামে।

আমের দামে ধস নামার কারণ ব্যাপক বৃষ্টিপাত। গত তিনদিন ধরে চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যাপক বৃষ্টিপাতে পানিবন্দি মানুষ। জলাবদ্ধতার কারণে নগরজুড়ে খুচরা বাজারে আম বেচাকেনায় ধস নেমেছে। এর প্রভাব পড়েছে পাইকারি বাজারে।

চট্টগ্রাম ফল ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজি মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘দেশের সব মোকাম থেকে প্রতিদিন ৩০ থেকে ৩৫ গাড়ি আম আসছে। বৃষ্টির কারণে বেচাকেনা কমায় আমরা চরম হতাশ।’

সিহা ফ্রুট এজেন্সির মালিক মোহাম্মদ আলমগীর বলেন, ‘প্রতিদিন অন্তত ৪৪০ টন আম ঢুকছে ফলমণ্ডি বাজারে। বৃষ্টির কারণে ব্যাপক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হওয়ায় গাড়ি থেকে আম নামানো এবং বাজার থেকে সরবরাহ দেওয়া কঠিন হয়ে পড়েছে।’

খুচরা ব্যবসায়ীরা ফলমণ্ডি থেকে পাইকারি দামে  ফল কিনে খুচরা বাজারে বিক্রি করেন। বৃষ্টিপাতের কারণে খুচরা বাজারে বেচাকেনায় ধস নেমেছে।

ফলমণ্ডি ব্যবসায়ী ও জননী এন্টারপ্রাইজের মালিক নাসির উদ্দিন মাহমুদ বলেন, ‘জলাবদ্ধতা ও বৃষ্টির কারণে গাড়ি থেকে আম নামানো যাচ্ছে না। আম নষ্টও হয়ে যাচ্ছে।’

জানা গেছে, বিআরটিসি মোড়ের ফলমণ্ডি আড়তে গতকাল হিমসাগর আম কেজি ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হয়। সবচেয়ে ভালো জাতের আম বিক্রি হয় ৪০ টাকায়। আর ল্যাংড়া বিক্রি হয় ৩৫ টাকায়। গুটি জাতের আম কেজি মাত্র ২৫ টাকায়। তবে পাইকারি বাজারে দাম কমলেও খুচরা বাজারে এর প্রভাব নেই। কাজির দেউড়ি বাজারে গত সোমবার সবচেয়ে ভালো হিমসাগর আম বিক্রি হয়েছে কেজি ১১০ টাকায়। ল্যাংড়া আমের দামও একই। কাজির দেউড়িতে অবশ্য ৭০ টাকা দামের হিমসাগর ও ল্যাংড়া আম বিক্রি হচ্ছে। সেগুলো স্বাদ ও মানে কিছুটা কম।

 



মন্তব্য