kalerkantho


ম্যাক রেভলনের পণ্য ২০০ টাকায়!

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



ম্যাক রেভলনের পণ্য ২০০ টাকায়!

চট্টগ্রাম নগরের আগ্রাবাদে লাকী প্লাজায় গতকাল ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালান। এ সময় বিপুল পরিমাণ নকল প্রসাধন সামগ্রী জব্দ করে ধ্বংস করা হয়। ছবি : সংগৃহীত

ম্যাক, রেভলন এর মতো বিখ্যাত ব্র্যান্ডের প্রসাধন সামগ্রী; আন্তর্জাতিক বাজারেই যার মূল্য বেশ চড়া, সেই পণ্য বিক্রি হচ্ছে মাত্র ১০০ থেকে ২০০ টাকায়! রমজান ঘিরে দেশের বাজারে যখন মুনাফালোভীদের থাবায় জনগণের হাঁসফাঁস অবস্থা ঠিক তখন নামমাত্র মূল্যে এসব বিদেশি প্রসাধন সামগ্রী বিক্রি হয় কীভাবে?

পণ্য হাতে নিয়ে নড়াচড়া করতে গিয়ে গোমর ফাঁস হয়ে গেল ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে। প্যাকেটের গায়ে মেয়াদ আছে ঠিকঠাক, প্যাকেট খোলতেই ভেতরে মেয়াদোত্তীর্ণ কসমেটিক পণ্য। রবিবার এমন অভিনব প্রতারণার চিত্র দেখা গেল চট্টগ্রাম নগরের আগ্রাবাদে লাকী প্লাজার বিভিন্ন কসমেটিকসের দোকানে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযান পরিচালনা করেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তানিয়া মুন ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নওশের ইবনে হালিম।

ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান পরিচালনায় গিয়ে দেখতে পান, লাকী প্লাজার বিভিন্ন কসমেটিকসের দোকানে যেসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে, এগুলোর উত্পাদনের তারিখ নেই, নেই মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ। অথচ কসমেটিকসের মত স্পর্শকাতর পণ্যে উত্পাদন ও মেয়াদ উত্তীর্ণের তারিখ থাকা বাধ্যতামূলক।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ধারণা, বিদেশি নামি দামি বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পণ্যের নকল করে এসব পণ্য বাজারে ছাড়া হয়েছে। এই কারণে কোনো মেয়াদ উল্লেখ নেই। সত্যিকারের বাজার মূল্যের চেয়ে পণ্যগুলোর মূল্য অস্বাভাবিক কম। এছাড়া রবিবারের অভিযানে ওই মার্কেটের বিভিন্ন দোকানে অভিযান চালিয়ে বেশকিছু মেয়াদোত্তীর্ণ কসমেটিক জব্দ করা হয়। পরবর্তীতে এসব পণ্য সবার সামনে ধ্বংস করা হয়। দুটি দোকানে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৩৭ ধারা মোতাবেক পৃথকভাবে মোট ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পোড়া তেল রাখায় হোটেলকে জরিমানা

একাধিকবার ব্যবহার করা পোড়া তেল সংরক্ষণ করায় ক্যাফে বায়েজিদকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। গতকাল রবিবার অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান এ জরিমানা করেন।

নগরের বায়েজিদ থানা এলাকায় বাজার তদারকি অভিযান পরিচালনা করেন তিনি। এ সময় অক্সিজেন মোড় এলাকার বিসমিল্লাহ হোটেলকে ইফতারসামগ্রী সংরক্ষণে ছাপানো নিউজপ্রিন্ট ব্যবহার করায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৪৩ ধারায় ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক বিকাশ চন্দ্র দাস পাঁচলাইশ থানায় তদারকি কার্যক্রমে নেতৃত্ব দেন।

এ সময় প্রবর্তক মোড় এলাকার স্নুপি রেস্টুরেন্টকে খাদ্য উত্পাদনে নোংরা পাত্র ব্যবহার করায় ১০ হাজার টাকা, ক্যান্ডিকে বাসি সিদ্ধ ডিম অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় ফ্রিজে সংরক্ষণ করায় ১০ হাজার টাকা, দুই নম্বর গেট এলাকার আফগান রেস্টুরেন্টকে জিলাপি তৈরিতে হাইড্রোজ ব্যবহার ও ফ্রিজে কাঁচা মাংসের সঙ্গে খোলা অবস্থায় রান্না করা খাবার সংরক্ষণ করায় ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

 

 



মন্তব্য