kalerkantho


ইট বালু ও সিমেন্টবাহী ট্রাকে ত্রিপল না দেওয়ায় জনভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ইট বালু ও সিমেন্টবাহী ট্রাকে ত্রিপল না দেওয়ায় জনভোগান্তি

ইটের গুঁড়ো, বালু, পাথরকুচি, সিমেন্ট পরিবহনের সময় গাড়িতে ত্রিপল না দেওয়ায় জনভোগান্তি সৃষ্টি হচ্ছে। এ কারণে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের জন্য খোলা ট্রাকে ত্রিপল ছাড়া ইট-বালু-সিমেন্ট পরিবহন বন্ধ করতে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক), চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ (চবক) ও প্রকল্প বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক)।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন বিভাগের মাসিক সমন্বয় সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চিঠি দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানান।

সভায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন সভাপতিত্ব করেন। সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে নগরীকে নান্দনিকভাবে সাজানোর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মেয়র বলেন, ‘পরিবেশগতভাবে যা যা করণীয় সবই করবে চসিক। পরিচ্ছন্ন বিভাগের কার্যক্রমের ওপর নগরীর সৌন্দর্য ও পরিবেশ নির্ভর করে। এ বিভাগের সেবক, দলপতি, সুপারভাইজার, পরিদর্শক, তত্ত্বাবধায়ক, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা ও প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তার সম্মিলিত প্রয়াস ও আন্তরিকতার মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন নগরী গড়ে তোলা সম্ভব। এ কাজে কোনো ধরনের অবহেলা, গাফেলতি বা অনিয়মের কারণে চসিকের সুনাম ও সুখ্যাতি ক্ষুণ্ন হলে কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী রেহাই পাবে না।’

মেয়র আরো বলেন, ‘পণ্য বোঝাইকারী এসব ট্রাক থেকে উড়ে আসা বালি, ইটের গুঁড়ো, সিমেন্ট উড়ে এসে রাস্তায় পড়ছে। রাস্তা থেকে এসব উপাদান যাচ্ছে ড্রেন বা নালায়। নালা-নর্দমা ভরাট হওয়ার এটাও একটা নেপথ্য কারণ।’

সভায় ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সামসুদ্দোহা, প্রধান প্রকৌশলী লে. কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদ, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ শফিকুল মন্নান ছিদ্দিকী, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক, আনোয়ার হোছাইন, মুনিরুল হুদা, আবু সালেহ, কামরুল ইসলাম, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম, নির্বাহী প্রকৌশলী সুদীপ বসাক, ঝুলন কুমার দাশ, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদুল আলম চৌধুরী, শেখ হাসান রেজা নিজ নিজ ওয়ার্ডের কার্যক্রম সম্পর্কে মেয়রকে অবহিত করেন।

মাদকাসক্তদের নিরাময়ে সহায়তা দিবে সিটি করপোরেশন : মাদকাসক্তদের নিরাময়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) সহায়তা দেবে জানিয়ে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, মাদকাসক্তদের দ্বারা পরিবার, সমাজ ও দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ সামাজিক ব্যাধি থেকে বাঁচানোর জন্য নিজ সন্তানের দরদ দিয়ে ভালোবাসতে হবে। তাদের গতিবিধি ও আচার-আচরণ সার্বক্ষণিক নজরে রাখতে হবে। তবেই নতুন প্রজন্মের কিশোর-যুবকেরা অপরাধে জড়াবে না।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে নগরীর ২১ নম্বর জামালখান ওয়ার্ডের প্রিয়া কমিউনিটি সেন্টারে চসিকের আয়োজনে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও মাদকবিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন। কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমনের সভাপতিত্বে এবং চসিকের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিমের সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন চসিকের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভাপতি এইচ এম সোহেল, চুয়েটের প্রফেসর ড. সুনিল ধর, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আখতার, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট ও যুগ্ম জেলা জজ জাহানারা ফেরদৌস।

মেয়র বলেন, ‘নিরাপদ বসবাসের জন্য সমাজ থেকে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলে সামাজিক আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও পেশাজীবীর সমন্বয়ে মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে সবাইকে অবদান রাখতে হবে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ একটি সামাজিক ব্যাধি।’

জামালখান ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাশেম বাবুল, সাধারণ সম্পাদক মোরশেদুল আলম, দোকান মালিক সমিতির সহসভাপতি মো. সাহাবউদ্দিন, কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিথুন বড়ুয়া, জামালখান নিরাপত্তা পরিষদের আবু ফরহাদ চৌধুরী, লাভলেন ঝাউতলা সমাজ উন্নয়ন পরিষদের সদস্যসচিব আহমদ সোবহান, মো. ইকবাল আহমদ প্রমুখ।



মন্তব্য