kalerkantho


চকরিয়ায় ৩৪ হাজার ইয়াবা জব্দ, গ্রেপ্তার ৬

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

৪ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পর্যটক বেশে কক্সবাজার থেকে পাচারের সময় চকরিয়ায় মহাসড়কের মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ জব্দ করেছে ৩৪ হাজার ইয়াবা। এ সময় গ্রেপ্তার করা হয় ইয়াবা পাচারে জড়িত ৬ জনকে। জব্দ করা হয় তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেট কার ও নোয়া গাড়ি। গতকাল শনিবার সকালে খুটাখালী মেধাকচ্ছপিয়া জাতীয় উদ্যান এলাকা এবং শুক্রবার রাতে ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্ক গেটের সামনে অভিযান চালায় হাইওয়ে পুলিশ।

মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. রুহুল আমিন জানান, কক্সবাজার ছেড়ে আসা একটি প্রাইভেট কার (ঢাকামেট্রো-গ-২৬৬৬) গতকাল শনিবার সকাল ১১টার দিকে মেধাকচ্ছপিয়া জাতীয় উদ্যান এলাকায় পৌঁছলে পুলিশের সন্দেহ হয়। এ অবস্থায় সংকেত দিয়ে গাড়িটির গতিরোধ করে চালানো হয় তল্লাশি। এ সময় টিস্যু বক্সের ভেতর থেকে উদ্ধার করা হয় চার প্যাকেট। এসব প্যাকেট খুলে পাওয়া যায় চার হাজার ইয়াবা। গ্রেপ্তার করা হয় ঢাকা নগরীর খিলক্ষেত খাঁনপাড়ার মৃত কেরামত আলীর ছেলে মো. তুহিন খাঁন (৩৫), চাঁদপুর জেলার হাজিগঞ্জ থানার অলিপুর (ঢালী বাড়ি) গ্রামের মনছুর আলীর ছেলে মো. শরীফ উদ্দিন (১৯) ও হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার কমলপুর গ্রামের মৃত কাদের মিয়ার ছেলে ছুট্টু মিয়াকে (৩৫)।

এদিকে শুক্রবার রাত ১১টার দিকে ডুলাহাজারার বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্কের সামনে গতিরোধ করা হয় একটি নোয়া গাড়ি (ঢাকামেট্রো-চ-৫১-৬৬৬৫)। এ সময় গাড়িটি তল্লাশি করে সিটের নিচ থেকে স্কচটেপ দিয়ে মোড়ানো অবস্থায় পাওয়া যায় চারটি স্টিক। সেখান থেকে জব্দ করা হয় ৩০ হাজার ইয়াবা। এ অবস্থায় গাড়িটি ফেলে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয় জনতা ধাওয়া দিয়ে নোয়া গাড়ির চালকসহ তিন পাচারকারীকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করে। এরা হলেন টেকনাফ পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত দুদু মিয়ার ছেলে মো. জুবায়ের (২১), দীন মোহাম্মদের ছেলে মো. ইউনুছ ওরফে বার্মাইয়া ইউনুছ (২৭) এবং একই এলাকার জালাল আহমদ (২৬)। তবে এ সময় পালিয়ে যান সেলিম নামের আরো একজন।

মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক আলমগীর হোসেন জানান, হাইওয়ে পুলিশের পৃথক অভিযানে বিপুলসংখ্যক ইয়াবাসহ গ্রেপ্তারকৃত ৬ জনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক মামলা করা হয়েছে চকরিয়া থানায়।



মন্তব্য