kalerkantho


যৌতুকের জন্য নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগে মামলা

বাদী ও সাক্ষীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনের অভিযোগে দায়ের করা একটি মামলার ঘটনা মিথ্যা প্রতীয়মান হওয়ায় আদালত বাদী ও সাক্ষীসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন। গতকাল বুধবার চট্টগ্রাম নগর হাকিম মো. সফি উদ্দিন এ পরোয়ানা জারি করেন। তাঁরা হলেন মামলার বাদী রাবেয়া বেগম এবং সাক্ষী মো. ইকবাল, গিয়াসউদ্দিন, মো. ইউসুফ ও শফিউল আলম।

মামলার বিবাদীপক্ষের আইনজীবী মাহমুদুল হক জানান, এর আগে মামলার বাদী ও সাক্ষীদের একাধিকবার সমন দিয়েছিলেন আদালত। আদালতের সমন পাওয়া সত্ত্বেও বাদী-সাক্ষীরা আদালতে হাজির হননি। এ কারণে আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।

আদালত সূত্র জানায়, বাকলিয়া থানার আব্দুল লতিফের হাট এলাকার আলমের কলোনির বাসিন্দা আনিস আহমেদের বিরুদ্ধে রাবেয়া বেগম নামে এক নারী নিজকে আনিসের স্ত্রী পরিচয় দিয়ে ২০১৭ সালের ৭ নভেম্বর মামলা করেন। ওই মামলার আরজিতে অভিযোগ করা হয়, ২০১৭ সালের ৩১ অক্টোবর এক লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে আনিস তাকে মারধর করেছেন।

আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে আসামির বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে। এ মামলায় ১৯ নভেম্বর আসামি আনিসকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করে। পরদিন আনিসের জামিন মঞ্জুর করে আদালত। এ সময় আনিসের পক্ষে আইনজীবী মাহমুদুল হক আদালতকে জানান, বিয়ের কাবিননামা ভুয়া। মামলার ঘটনাও ভুয়া। আদালত বিয়ে পড়ানোর কাজিকে বালামবইসহ হাজির হওয়ার আদেশ দেন আদালত। পরে সেই কাবিন ভুয়া প্রমাণিত হয়। এরপর আদালত মামলার বাদী ও সাক্ষীদের আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন। কিন্তু তারা আদালতে হাজির হয়নি। এ কারণে আদালত গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে।



মন্তব্য