kalerkantho


‘এপ্রিলের মধ্যে ওয়াসার পানি সরবরাহ লাইনের কাজ শেষ হবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আগামী মার্চ-এপ্রিলের মধ্যে নগরীতে পানি সরবরাহের ওয়াসার পাইপ লাইন স্থাপনের কাজ শেষ হবে। বিশ্বব্যাংকের সিডব্লিউএসআইএসপি প্রকল্পের অধীনে ওই কাজ চলছে। রাঙ্গুনিয়ায় ৯৫ এবং রাউজানে ৬৫ শতাংশ পাইপলাইনের কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে ওয়াসার সরবরাহ পাইপলাইন স্থাপনের কাজে নিয়োজিত বিদেশি পরামর্শক ও ঠিকাদারি সংস্থার কর্মকর্তারা এ কথা বলেন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, পাইপলাইন নির্মাণ অত্যন্ত জটিল ও কারিগরি বিষয়। চুক্তি অনুযায়ী ৫ ফুট গভীরে পাইপলাইন বসানোর কথা থাকলেও বর্তমানে ২০ ফুট নিচ দিয়ে নিতে হচ্ছে বিদ্যুৎ, ওয়াসা, বিটিসিএল, মোবাইল কম্পানির পাইপলাইনের কারণে। এ অতিরিক্ত কাজের জন্য ওয়াসা কোনো বাড়তি খরচ দিচ্ছে না। ২৭ ফুটের একটি পাইপ বসাতে ১০০ টন মাটি অপসারণ করতে হচ্ছে। জনগণের ভোগান্তি কমাতে দিনে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক রেখে রাতে কাজ করা হচ্ছে বলে জানান তাঁরা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৭ সালে প্রবল বর্ষণ, ভূমিধস, কোনো কোনো এলাকায় অতি জলাবদ্ধতার কারণে দীর্ঘদিন কাজ করা যায়নি। ২০১৯ সালের মধ্যে জাইকার কেডব্লিউএসপি-২ প্রকল্পের ট্রান্সমিশন পাইপলাইনের কাজ শেষ হবে এবং বিতরণ পাইপলাইনের কাজ ২০২২ সালে সম্পন্ন হবে।

বিদেশি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিরা বলেন, ২০১৬ সালে ঢাকায় বিদেশি বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের ওপর সশস্ত্র হামলার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশে কর্মরত বিদেশি বিশেষজ্ঞ ও প্রকৌশলীদের নিজ নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার জন্য বিভিন্ন দেশের নির্দেশনা ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকারের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সহযোগিতা ও চট্টগ্রামের জনপ্রতিনিধি, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, সাংবাদিক ও জনগণের অভূতপূর্ব সহায়তায় আমরা নিজ দেশে ব্যক্তিগত রিস্ক বন্ড সই করে পাইপলাইনের কাজ চলমান রাখতে পেরেছি। ধৈর্য ও সহযোগিতার জন্য তারা চট্টগ্রামবাসীকে ধন্যবাদ জানান।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চায়না পেট্রোলিয়াম পাইপলাইন ব্যুরোর গাও জুনবাও, এনজেএস কনসালটেন্ট কম্পানি লিমিটেডের পক্ষে মাশাহারু তাকাসুগি, চায়না জিও ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশনের চি জিওডিং, হুবেই ইন্ডাস্ট্রিয়াল কনস্ট্রাকশন গ্রুপ কম্পানি লিমিটেডের ওয়াং আও, গ্রোন্টমিজের সায়মন ডি হান, কোলন গ্লোবাল করপোরেশনের জি হন কিম, কুবোতা কনস্ট্রাকশন কম্পানি লিমিটেডের আকিরা শিরাই, প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী কাজী ইয়াকুব সিরাজুদ্দৌলা ও নুরুল আবসার, চায়না পেট্রোলিয়াম পাইপলাইন ব্যুরোর প্রকল্প উপদেষ্টা প্রকৌশলী রাজীব বড়ুয়া প্রমুখ।



মন্তব্য