kalerkantho


ইয়াবা পাচার

সাত রোহিঙ্গার ১০ বছর করে জেল

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



প্রায় ৬ কোটি ৪০ লাখ টাকা মূল্যের এক লাখ ২৮ হাজার ইয়াবা পাচারের একটি চাঞ্চল্যকর মামলার রায়ে সাত রোহিঙ্গাকে ১০ বছর করে কারাদণ্ডাদেশ এবং এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা অনাদায়ে আরো এক মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। দণ্ডিতরা সবাই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের বাসিন্দা এবং ইয়াবা পাচারকারী।

কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. ওসমান গণি গতকাল মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন। মামলাটি মাত্র ৬ কার্যদিবসের ৫ মাসে বিচার কাজ শেষ করে আদালতের বিচারক মামলা নিষ্পত্তির কাজে রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন বলে রাষ্ট্র নিয়োজিত কৌসুলি অ্যাডভোকেট মোকতার আহমদ জানান।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, গত বছরের ২৬ মার্চ সকালে বঙ্গোপসাগরের সেন্টমার্টিন দ্বীপ সন্নিহিত সাগরে কোস্টগার্ড সদস্যরা মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশমুখী ইয়াবার চালান বোঝাই একটি ইঞ্জিনচালিত নৌকা আটক করেন। কোস্টগার্ড সদস্যরা নৌকাটি আটক করার পর তাতে তল্লাশি চালিয়ে উদ্ধার করেন এক লাখ ২৮ হাজার ইয়াবার একটি বড় চালান।

নৌকাটিতে ইয়াবার চালান পাওয়ার পর কোস্টগার্ড নৌকাটির সাত পাচারকারীকে আটক করে। তাঁরা হলেন আবদুল জলিল (৪০), মুজিবুর রহমান (১৯), সাইদুল আমিন (৫০) মোহাম্মদ রফিক (৪৫), আবদুল মালেক (৬০), মোহাম্মদ আয়াস (২৫) ও মোহাম্মদ গণি (৩০)। তাঁরা সবাই মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের আকিয়াব থানার দেবাইন গ্রামের বাসিন্দা।

দণ্ডিত আসামিরা সবাই আদালতে হাজির ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট মোকতার আহমদ এবং আসামি পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. সেলিম উদ্দিন রাজু।



মন্তব্য