kalerkantho


মিঠুন চাকমা হত্যা
খাগড়াছড়িতে অবরোধের পর নতুন কর্মসূচি

আজ ৮ উপজেলা সদরে ইউপিডিএফের বিক্ষোভ

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



আজ ৮ উপজেলা সদরে ইউপিডিএফের বিক্ষোভ

সংগঠনের কেন্দ্রীয় সংগঠক মিঠুন চাকমার খুনসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের বিদ্যমান পরিস্থিতি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে করেছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)।

সোমবার সকালে জেলা শহরের স্বনির্ভর এলাকায় সংগঠনের জেলা কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইউপিডিএফের কেন্দ্রীয় সদস্য নতুন কুমার চাকমা। তিনি বলেন, ‘মিঠুন চাকমা হত্যার পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও প্রশাসন কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।’ তিনি হত্যাকাণ্ডের জন্য ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিককে দায়ী করেন। রাঙামাটিতে ইউপিডিএফের আরো দুই নেতাকে খুনের সঙ্গেও ওই খুনি চক্র জড়িত বলে অভিযোগ করা হয়। এছাড়া মিঠুন চাকমার লাশ নিয়ে টালবাহানা, অবরোধে বাধা প্রদানের ঘটনায় প্রশাসনের সমালোচনা করে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ইউপিডিএফ নেতাকর্মীদের খুনের ঘটনায় নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ মঙ্গলবার খাগড়াছড়ির আট উপজেলা সদরে বিক্ষোভ, ১১ ও ১৪ জানুয়ারি খাগড়াছড়িতে বিক্ষোভ, স্মরণসভা ও প্রদীপ প্রজ্বলন, ১৭ জানুয়ারি রাঙামাটি ও বান্দরবানে সংহতি সমাবেশ, ১৯ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সংহতি সমাবেশ এবং ২৮ জানুয়ারি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত প্রজ্ঞাপন বাতিলসহ ৮ দফা দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপিডিএফের জেলা সংগঠক মাইকেল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি বিনয়ন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা প্রমুখ। উল্লেখ্য, ৩ জানুয়ারি খাগড়াছড়ি শহরে দুর্বৃত্তের গুলিতে প্রাণ হারান মিঠুন চাকমা। ঘটনার চারদিন পর পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেছে। তবে এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।



মন্তব্য