kalerkantho


কক্সবাজারে গিয়ে মারামারি

প্রগতির সাত কর্মচারী সাময়িক বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



কক্সবাজারে পিকনিকে গিয়ে মারামারির জের ধরে সাতজন কর্মচারীকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত গাড়ি সংযোজনকারী প্রতিষ্ঠান প্রগতি ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড (পিআইএল)। মূলতঃ সিবিএ-নন সিবিএ ইস্যুতে দুপক্ষের মারামারির ঘটনাকে কেন্দ্র করে এ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়। সাময়িক বরখাস্তরা হলেন নন-সিবিএর সাধারণ সম্পাদক শহীদ উল্লাহ, সদস্য মো. সালাহ উদ্দিন, মো. মামুন, এমরান হোসেন ও মো. সিরাজ। বাকি দুজন হলেন সিবিএ সদস্য সাহিজুল আলম নিপ্পন ও আবুল হাশেম।

জানা গেছে, ২৮ ডিসেম্বর পিআইএলের বার্ষিক পিকনিকে দুদিনের সফরে দেড় শতাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারী কক্সবাজার যান। পরদিন রাতে মোটেল উপলে রাতের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সিবিএর কার্যকরী সভাপতি মো. রফিকের বক্তব্যকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় পরস্পরের মধ্যে হাতাহাতি ও চেয়ার ছোড়াছুড়ির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ এলে মারামারির মধ্যে পড়ে এক পুলিশ সদস্যও আহত হন। পরে সদর থানার তদন্ত কর্মকর্তা এসে অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেন এবং আবুল হাশেমকে থানায় নিয়ে যান। অবশ্য রাতে তাঁকে থানা থেকে ছাড়িয়ে আনেন পিআইএল কর্মকর্তারা।

গত রবিবার অফিস খোলার পর ঘটনার সঙ্গে জড়িত সাতজনকে কারণ দর্শানোর পাশাপাশি সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

বরখাস্ত হওয়া নন-সিবিএর সাধারণ সম্পাদক শহীদ উল্লাহ মঙ্গলবার নোটিশ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘নোটিশের জবাব তৈরি করছি।’ তিনি পুরো ঘটনার জন্য সিবিএ সভাপতি আতিকুর রহমানকে দায়ী করেন।

পিআইএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. তৌহিদুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ইংরেজি নববর্ষকে বিদায় দিতে ওই সময় প্রায় দেড় থেকে দুই লাখ মানুষ কক্সবাজারে অবস্থান করছিলেন। সে সময় এ ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনায় আমরা বিব্রত। শৃঙ্খলার স্বার্থেই উভয়পক্ষকে শাস্তির আওতায় এনেছি।’


মন্তব্য