kalerkantho


আট পুলিশ কর্মকর্তা বিপিএম ও পিপিএম পাচ্ছেন যে কারণে

এস এম রানা, চট্টগ্রাম   

২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



সীতাকুণ্ডের জঙ্গি আস্তানায় সফলভাবে অপারেশন ‘অ্যাসল্ট সিক্সটিন’ পরিচালনা, আবর্জনার স্তূপ থেকে নবজাতককে উদ্ধার করে জীবনরক্ষা কিংবা খুন-ডাকাতির ঘটনার দ্রুত সময়ে রহস্য উম্মোচন ও সেবামূলক কর্মকাণ্ডে চট্টগ্রামের আটজন পুলিশ কর্মকর্তা বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) ও প্রেসিডেন্ট পুলিশ মেডেল (পিপিএম) পদক পাচ্ছেন।

পদস্থ কর্মকর্তাদের মধ্যে চট্টগ্রাম রেঞ্জের সাবেক ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম এবং চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা পাচ্ছেন বিপিএম। বাকি ছয়জনের মধ্যে তিনজন পাচ্ছেন পিপিএম সাহসিকতা এবং তিনজন পাচ্ছেন পিপিএম-সেবা পদক। বিপিএম প্রাপ্ত শফিকুল ইসলাম বর্তমানে পুলিশের অতিরিক্ত আইজিপি পদে কর্মরত রয়েছেন। অন্যরা চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ ও পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনে (পিবিআই) কর্মরত আছেন।

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা কালের কণ্ঠকে জানান, গত বছরের ১৫ মার্চ দুপুরে সীতাকুণ্ডে পরপর দুটি জঙ্গি আস্তানার সন্ধান পায় পুলিশ। সাধন কুটির ও ছায়ানীড় নামেই দুই আস্তানায় অভিযান চালানোর সময় পুলিশকে লক্ষ করে গ্রেনেড ছুড়ে জঙ্গিরা। এরপরই ওই বাড়ি  দুটি ঘিরে অভিযান চালায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

অভিযানের দিন ও রাতে কালের কণ্ঠের এই প্রতিবেদক অপারেশন ‘অ্যাসল্ট সিক্সটিন’ প্রত্যক্ষ করেন। ওইদিন অভিযানে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন চট্টগ্রামের রেঞ্জের তৎকালীন ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলাম। সঙ্গে ছিলেন জেলা পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনার নেতৃত্বাধীন পুলিশ দল। এছাড়াও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অন্য ইউনিট সোয়াত, র‌্যাব, কাউন্টার টেররিজম ইউনিট, পিবিআই এবং সিআইডিসহ একাধিক সংস্থা অভিযানে অংশ নিয়েছিল। ওই অভিযানে চার জঙ্গি এবং এক শিশুর মৃত্যু হয়েছিল।

জঙ্গি দমনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় অতিরিক্ত আইজিপি মো. শফিকুল ইসলাম এবং পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনাকে সাহসিকতায় বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) পদক দিচ্ছে পুলিশ বাহিনী। পুলিশের সর্বোচ্চ সম্মাননা পদক আগেও পেয়েছিলেন শফিকুল ইসলাম। এই নিয়ে তিনি দুইবার বিপিএম পদক পাচ্ছেন। এছাড়াও আগে তিনি পিপিএম পদক পেয়েছিলেন। অন্যদিকে চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা আগে পিপিএম পদক পেয়েছিলেন। এবার পাচ্ছেন বিপিএম।

বিপিএম (বার) পুরস্কারে ভূষিত হওয়ায় আল্লাহর কাছে শোকরিয়া জ্ঞাপন করেছেন অতিরিক্ত আইজিপি শফিকুল ইসলাম। কালের কণ্ঠের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘সীতাকুণ্ডের জঙ্গি আস্তানায় সফলভাবে অপারেশন অ্যাসল্ট সিক্সটিন পরিচালনায় করায় সরকার তাঁকে পুরস্কৃত করছে। যেকোনো কাজের স্বীকৃতি আনন্দ দায়ক। সীতাকুণ্ডে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী জীবনবাজি রেখে অপারেশন পরিচালনা করে জঙ্গি দমনে ভূমিকা রেখেছে।’

একইভাবে চট্টগ্রাম জেলার পুলিশ সুপার নুরেআলম মিনা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘অপারেশনের এক পর্যায়ে জঙ্গিরা গ্রেনেড চার্জ করলে আমরা মৃত্যুর মুখে পড়েছিলাম। সেদিন আল্লাহর রহমতে প্রাণে বেঁচে গেছি। এখন পুরস্কার পাচ্ছি ভাবতেই ভালো লাগছে।’

একই ঘটনায় আরো তিনজন পিপিএম (সাহসিকতা) পদক পাচ্ছেন। তাঁরা হলেন চট্টগ্রাম নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার ও সোয়াতের দলনেতা মির্জা সায়েম মাহমুদ, সীতাকুণ্ড থানার অফিসার ইনচার্জ ইফতেখার হাসান এবং সোয়াতের এটিএসআই জিহাদ হোসেন। তাঁদের মধ্যে মির্জা সায়েম মাহমুদ ঘটনার দিন জঙ্গিদের ছোড়া গ্রেনেডের স্প্রিন্টারবিদ্ধ হয়েছিলেন। পিপিএম পদকে ভূষিত হওয়ায় মির্জা সায়েম মাহমুদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ওইদিন যে বেঁচে ফিরেছিলাম, সেটাই ভাগ্যের বিষয়। আমি মহান আল্লাহর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

এদিকে আকবর শাহ থানা এলাকার আবর্জনার স্তুূপ থেকে জীবিত অবস্থায় এক নবজাতককে উদ্ধার করে পুলিশ। ২০ ফেব্রুয়ারি রাতে ২১ ফেব্রম্নয়ারির আগ মুহূর্তে নবজাতক উদ্ধার হওয়ায় আকবর শাহ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর মাহমুদ নবজাতকের নাম রাখেন একুশ। এই একুশের জীবনরক্ষায় হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা থেকে শুরু করে আদালতের মাধ্যমে একুশকে ‘নতুন’ বাবা-মায়ের কোলে তুলে দেওয়া পর্যন্ত সময়ে আকবর শাহ থানার অফিসার ইনচার্জ আলমগীর মাহমুদের ভূমিকা ছিল প্রশংসনীয়। এই কারণে আলমগীর মাহমুদ পাচ্ছেন পিপিএম-সেবা পদক। আলমগীর মাহমুদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘একুশের জীবনরক্ষায় ভূমিকা রাখতে পেরে আমি সন্তুষ্ট। আর এই কাজের জন্য পদক পাওয়া নিশ্চিতভাবেই খুশির খবর।’ অন্যদিকে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) চট্টগ্রাম মেট্রো অঞ্চলের পরিদর্শক সন্তোষ চাকমা করিৎকর্মা কর্মকর্তা। স্পর্শকাতর খুন, ডাকাতি ও ধর্ষণ মামলার রহস্য উম্মোচন করে গত বছর জুড়েই আলোচনায় ছিলেন সন্তোষ কুমার। তিনি পাচ্ছেন পিপিএম সেবা পদক। তিনি বলেন, ‘কাজের স্বীকৃতি উৎসাহ বাড়ায়। আগেও পিপিএম পদক পেয়েছি। দ্বিতীয়বার পিপিএম পদকপ্রাপ্তির খবরে আমি খুশি। ভবিষ্যতেও কাজের মাধ্যমে মানুষের সেবা করে যাব।’ এছাড়াও চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের উপ-পরিদর্শক শফিকুল ইসলামও পিপিএম সেবা পদক পাচ্ছেন।



মন্তব্য