kalerkantho


তালায় খাল থেকে মাটি চুরি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



সাতক্ষীরার তালায় সরকারি খাল থেকে মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে জিআইবি ইটভাটা মালিক। গত দুই মাস ধরে তালার গোনালী নলতা এলাকার খাল থেকে মাটি চুরি করছে ভাটার লোকজন। এ কাজে মাটি কাটা যন্ত্র এক্সকাভেটর ব্যবহার করা হচ্ছে। ফলে পরিবেশ বিপর্যয়সহ বর্ষা মৌসুমে খালপারের জমিগুলো ধসে ফসলি জমির ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা করছে স্থানীয় কৃষকরা।

গোনালী নলতা গ্রামের ইয়ানুর হোসেন, তবিবর রহমান, আব্দুল হাই, টিটু সুলতান, রোজনুজ্জামন ও মিন্টু দাস জানান, জিআইবি ইটভাটার মালিক লোকজন দিয়ে দুই মাস ধরে মাটি কেটে চলছে। প্রতিদিন ভোর থেকে ছয়টি ট্রাক্টর করে কাটা মাটি ইটভাটায় পাচার করা হচ্ছে। 

এর আগে এ ইটভাটা মালিকের বিরুদ্ধে কপোতাক্ষের বন্যা নিয়ন্ত্রণের বাঁধ থেকে মাটি চুরি করে ইট প্রস্তুত করার অভিযোগ রয়েছে। ধরা পরে তাদের জরিমানাও গুনতে হয়েছে। এবার সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই তারা খাল দখল করে মাটি কেটে নিচ্ছে। প্রতিদিন লাখ লাখ ঘন ফুট মাটি কাটা হচ্ছে এ খাল থেকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জিআইবি ইটভাটা মালিক কল্যাণ বসু বিনা অনুমতিতে সরকারি খালের মাটি কাটা অপরাধ স্বীকার করে জানান, এলাকায় প্রচুর ইটভাটা। ইট প্রস্তুতে প্রধান উপকরণ মাটির সংকট যাচ্ছে। তা ছাড়া বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে এ এলাকার মানুষ কষ্টে থাকে। এ জন্য মাটি কেটে খালটি গভীর করে দিলে এলাকার জলাবদ্ধতা অনেকটা দূর হবে। মানুষের উপকারের জন্যই তিনি খাল থেকে মাটি কেটে নিচ্ছেন।

তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. খলিল হোসেন জানান, সরকারি খালের মাটি কাটার বিষয়টি তাঁর জানা নেই। তবে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

কলারোয়ায় লাশ উদ্ধার

কলারোয়ায় অজ্ঞাতপরিচয় এক মানসিক প্রতিবন্ধীর (৩৯) লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। থানা পুলিশ গতকাল রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে পৌর সদরের তুলসীডাঙ্গার রইচ উদ্দীনের পরিত্যক্ত পুকুর পার থেকে লাশ উদ্ধার করে। কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জিয়াউর রহমান জানান, স্থানীয়দের দেওয়া খবরের ভিত্তিতে যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের পাশের ওই পুকুর থেকে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়। লাশের পরনে পুরনো কালো রঙের ফুল প্যান্ট ও গায়ে টি-শার্ট আছে। লাশের হাতে একটি আম ছিল। ধারণা করা হচ্ছে, দুই তিন দিন আগে তার মৃত্যু হয়েছে। মৃতের ঠিকানা সংগ্রহ ও মৃত্যুর কারণ উদ্ঘাটনে তদন্ত শুরু হয়েছে।

তুলসীডাঙ্গা গ্রামের মোস্তফা হোসেন, মোজাহিদ ও আবুল কাশেম জানান, মৃত ব্যক্তি একজন মানসিক প্রতিবন্ধী। গত কয়েক মাস ধরে সে এলাকায় ভিক্ষা করছিল।

 


মন্তব্য