kalerkantho


দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলবন্দর

চার নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি   

১৬ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:০০



চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার দর্শনা আন্তর্জাতিক রেলবন্দরের চার নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার রাতে রেলইয়ার্ডে দায়িত্বরত অবস্থায় তাঁদের ওপর এ হামলা চালানো হয়। আহত নিরাপত্তাকর্মীরা হলেন দর্শনা রেলবন্দরে দায়িত্বরত আনসার সদস্য হাফিজুর রহমান, হাবিলদার আব্দুর রাজ্জাক, সিপাহি আব্দুর রাজ্জাক ও নায়েক সঞ্জিত বিশ্বাস।

আহত নিরাপত্তকর্মীদের মধ্যে দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। একজন চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অন্যজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

এ হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে শনিবার রাতেই পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার সকালে আটক করা হয় আরো একজনকে। তারা হলো জসিম উদ্দীন, রাশেদুল ইসলাম, মো. সুজন, হারুন অর রশিদ, ইউনুস আলী ও আব্দুল গাফফার। হামলাকারী সবাই দর্শনার বাসিন্দা।

দর্শনা স্টেশনের রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান পরিদর্শক শাহ আলম জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে দর্শনা রেলইয়ার্ডে পাঁচজন নিরাপত্তাকর্মী দায়িত্ব পালন করছিলেন। এ সময় সাত-আটজন দুর্বৃত্ত অতর্কিতে তাঁদের ওপর হামলা চালায়। হামলাকারীরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে দায়িত্বরত নিরাপত্তাকর্মীদের কোপাতে থাকে। হামলাকারীদের উপর্যুপরি ধারালো অস্ত্রের কোপে তিন নিরাপত্তাকর্মী জখম হন। এর আগে আরো এক নিরাপত্তাকর্মীকে কুপিয়ে আহত করা হয়।

প্রধান পরিদর্শক আরো জানান, দীর্ঘদিন ধরে এই পথে ভারত থেকে ট্রেনযোগে বিভিন্ন ধরনের মাল বাংলাদেশে আসে। মাঝে প্রায় এক বছর মালামাল আসা বন্ধ ছিল। সম্প্রতি আবারও ট্রেনযোগে ভারত থেকে বিভিন্ন ধরনের খাদ্যশস্য ও পশুখাদ্য আসা শুরু হয়েছে। যারা হামলা করেছে তারা চিহ্নিত চোর। অতীতেও তারা এই বন্দরে থাকা ট্রেনের বগি থেকে মালামাল চুরি করেছে। ধারণা করা হচ্ছে, নিরাপত্তাকর্মীদের পাহারার কারণে চুরি করতে না পেরে তারা এভাবে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মশিউর রহমান জানান, আহত নিরাপত্তাকর্মীদের মধ্যে হাফিজুর রহমান ও আব্দুর রাজ্জাকের ক্ষত গুরুতর হওয়ায় তাঁদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

 


মন্তব্য