kalerkantho


নূতনের কেতন

জিরো থেকে হিরো   

ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যসহ মার্কিন মুলুকের যুবকদের মুখে মুখে এখন র্যাপ সং ‘ডি রোজ’ ও ‘গুচি গ্যাং’। গানগুলোর শিল্পী লিল পাম্প। মাত্র ১৭ বছর বয়সেই চমক দেখিয়েছেন তিনি। লিখেছেন সজল সরকার

৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



জিরো থেকে হিরো    

সংগীতবিষয়ক ওয়েবসাইট সাউন্ডক্লাউডে গান প্রকাশের মাধ্যমে ক্যারিয়ার শুরু করেন গত বছর। অল্প সময়েই হয়ে ওঠেন আলোচিত।

এ বছর উপহার দিয়েছেন ‘গুচি গ্যাং’। গানটি এরই মধ্যে উঠে এসেছে বিলবোর্ড হট হানড্রেডের ৩ নম্বরে। র্যাপার হিসেবে পশ্চিমা যুব সম্প্রদায়ের হার্টথ্রব বনে যাওয়া লিল পাম্পের সংগীতে আসার গল্পটাও আর সবার চেয়ে ভিন্ন।

আসল নাম গ্যাজি গার্সিয়া। জন্ম ২০০০ সালে ফ্লোরিডার মায়ামিতে। ছোটবেলা থেকেই সংগীতের প্রতি ঝোঁক। ডানপিটে স্বভাবের গার্সিয়া স্কুলজীবনেই র্যাপ গান লিখতেন। নেশাটা আরো বেড়ে যায়, নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় এক সহপাঠীকে মারার অপরাধে স্কুল থেকে যখন বহিষ্কৃত হন। সে সময় বাসায় বসে বসে র্যাপ গান লিখে ট্র্যাক তৈরি করতেন।

হাই স্কুলে থাকাকালীন গত বছরই সবচেয়ে প্রিয় বন্ধু র্যাপার স্মোকপার্পের (যিনি লিল ওয়াটার নামে পরিচিত) অনুপ্রেরণায় ‘লিল পাম্প’ শিরোনামে একটি ট্র্যাক তৈরি করেন, যা প্রকাশ পায় গত বছরের মার্চে। লিল ওয়াটারের এক অনুষ্ঠানে ফ্রি স্টাইল পারফর্মও করেন লিল পাম্প। মূলত লিল ওয়াটারের অনুপ্রেরণাই তাঁকে র্যাপ জগতে নিয়ে আসে। অনলাইন স্ট্রিমিং ওয়েবসাইট সাউন্ডক্লাউডে ‘এলিমেন্টারি’, ‘গ্যাং শিট’, ‘ইগনোরেন্ট’ ও ‘ড্রামস্টিক’ গানগুলো প্রকাশ পেলে ভাইরাল হয়ে যায়। রাতারাতি লিল পাম্প বনে যান দক্ষিণ ফ্লোরিডার জনপ্রিয় আন্ডারগ্রাউন্ড র্যাপার।            

চলতি বছরের শুরু থেকে র্যাপার হিসেবে রমরমা জীবন শুরু করেন লিল। ‘বস’ ও ‘ডি রোজ’ গান দুটি তাঁকে পরিচিতি এনে দেয় গোটা বিশ্বে। এমন জনপ্রিয়তা দেখেই সংগীত পরিচালক কোল বেনেট তাঁকে দিয়ে ভিডিও তৈরি করে ইউটিউবে ছাড়েন। জুনে শীর্ষস্থানীয় মিউজিক কম্পানি ওয়ার্নার ব্রাদার্স রেকর্ডস ও দ্য লাইট গ্লোবালের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন অ্যালবাম প্রকাশের জন্য। ‘লিল পাম্প’ (মিক্সটেপ) নামেই প্রথম একক প্রকাশ করেন গত অক্টোবরে।

এখন বাস করছেন ক্যালিফোর্নিয়ার লস এঞ্জেলেসে। লিল পাম্পের দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে ওঠার পেছনে বড় ভূমিকা রেখেছে অনলাইন ও বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। তাই এই মাধ্যমে তিনি সময়ও দেন বেশি। গান চর্চার পাশাপাশি ইনস্টাগ্রাম, টুইটার ও ফেসবুক চালান সমানতালে। ব্যক্তিগত জীবনের অনেক কিছুই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিয়ে আসেন বেখেয়ালি লিল, যা অন্য পেশাদার শিল্পীদের ক্ষেত্রে অতি গোপনই থাকে। র্যাপার ভ্যাড ভাবির সঙ্গে সম্পর্কের বিয়ষটিও আড়াল করতে পারেননি। ভ্যাড ভেবির আসল নাম ড্যানিয়েল ব্রেগোলি। ১৪ বছর বয়সী ভেবির সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করছেন লিল পাম্প। সম্পর্কের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ করেছেন নিয়মিত।


মন্তব্য