kalerkantho

অপুর রাজনীতি

গত বছর ‘রাজনীতি’র শুটিংয়ের সময় হঠাৎ উধাও! এরপর ফিরলেন স্বামী-সন্তানের খবর নিয়ে। সেই ‘রাজনীতি’ ছবি নিয়েই এবার ঈদে পর্দায় হাজির হচ্ছেন অপু বিশ্বাস। লিখেছেন মীর রাকিব হাসান

১৫ জুন, ২০১৭ ০০:০০



অপুর রাজনীতি

গত ঈদে পর্দায় উপস্থিত হয়েছিলেন ‘সম্রাট’-এ। সেবার পর্দায় অপু থাকলেও ছিলেন না ছবির প্রচারণায়। সেই সময় তিনি কোথায় ছিলেন, সেটাও জানত না মিডিয়া। অনেক জল ঘোলা করে ফিরেছেন স্বশরীরে। ‘রাজনীতি’র সেট থেকে হাওয়া হয়ে গিয়েছিলেন, সেই রাজনীতি দিয়ে এবার ফিরছেন পর্দায়। ছবিটি নিয়ে অপুর প্রত্যাশা আকাশচুম্বী—‘দীর্ঘদিন পর শাকিব আর আমার ছবি মুক্তি পাচ্ছে। আশা করছি দর্শক ছবিটি আগ্রহ নিয়ে দেখবে। ইদানীং কলকাতার ছবি দেশের দর্শক দখল করার চেষ্টা করছে। দেশের চলচ্চিত্র রক্ষা করতে আমাদেরই এগিয়ে আসতে হবে। সবার প্রতি অনুরোধ, দেশীয় ছবিকে প্রাধান্য দিন, আমাদের উৎসাহ দিন।’

কলকাতার ছবি বলতে কি যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত নাকি শতভাগ ভারতীয় ছবির কথা বলছেন? ‘দুটোই। আগে দেশের ছবি, তারপর বাকি সব। যৌথ প্রযোজনা হতে হবে সমানে সমান। নামমাত্র বাংলাদেশের শিল্পী নিয়ে যৌথ প্রযোজনা বললে তো হবে না! নীতিমালায়ও সেটা নেই’, বললেন অপু।

শাকিব খান অভিনীত যৌথ প্রযোজনার ছবি নিয়েও তো বিস্তর অভিযোগ। তবে শাকিবের সমালোচনায় যেতে চাইলেন না অপু, ‘সেটা বিচার-বিশ্লেষণ করার আমি কে? সিনেমাবোদ্ধা, নীতিনির্ধারকরা আছেন। তাঁরাই সিদ্ধান্ত নেবেন কোনটা সঠিক। শাকিব বাংলাদেশের একজন শিল্পী, আমিও বাংলাদেশের শিল্পী। তাঁর ছবি না দেখে আমি বিচার-বিশ্লেষণে যাব না।’

‘রাজনীতি’ নিয়েও তো নানা কথা। ‘কী কী?’—জানতে চাইলেন অপু। এই যেমন পুরো শুটিং হওয়ার আগেই মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি, দক্ষিণ ভারতীয় ছবি থেকে অনুপ্রাণিত গল্প। শুটিং শেষ হওয়ার আগেই ছবি মুক্তির বিষয়ে কিছু বললেন না অপু। তবে দক্ষিণ ভারতীয় ছবির গল্প প্রসঙ্গে বলেন, ‘এটা মৌলিক গল্পের ছবি। পরিচালকের প্রতি আমার বিশ্বাস আছে। অভিনয় করতে গিয়ে আমার কখনো মনেই হয়নি এটি অন্য দেশের কোনো সিনেমার গল্প। ছবির টেকনিশিয়ান, শিল্পী সবাই বাংলাদেশের। নির্মাণশৈলীও দারুণ। বাংলা সিনেমায় সচরাচর এমন নির্মাণ দেখা যায় না। গানগুলোও অসাধারণ।’

এই ছবি ছাড়াও ঈদে শাকিবের আরো ছবি মুক্তি পাবে। অন্য ছবির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় এই ছবি সফল হবে বলেই মনে করেন অপু। বলেন, ‘একজন সুপারস্টারের একাধিক ছবি মুক্তি পেতেই পারে। আমি বিশ্বাস করি, শাকিব-অপু জুটির আলাদা দর্শক আছে। তারা এই ছবির জন্য অপেক্ষা করছে। এই ছবি সফল হবেই। তবু আমি সব ছবির জন্যই শুভ কামনা করছি।’ 

সিনেমা মুক্তির সময় ভীষণ জরুরি একটা বিষয় প্রচারণা। ‘রাজনীতি’র প্রচারণা কেমন হচ্ছে? ‘ফিল্মে অভিনয় করার পর থেকে প্রতি ঈদেই আমার সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। ব্যতিক্রম ছিল গত কোরবানির ঈদ। আমি তখন একটা শুভ সংবাদের অপেক্ষা করছিলাম। এখন আবরাম এসেছে। তাকে নিয়ে এখন থেকে সবখানে হাজির হব। দর্শক আমাদের উৎসাহ দিয়েছে, ভালোবাসা দিয়েছে। আশা করি সব সময়ই তারা আমাদের পাশে থাকবে’, বললেন অপু।

নিন্দুকরা বলছে, ‘রাজনীতি’র প্রচারণায় শাকিব একেবারেই অনুপস্থিত। শোনা যাচ্ছে,  ‘রংবাজ’ নিয়েই তাঁর আগ্রহটা বেশি। ‘আমার তেমনটা মনে হয় না। এটা সে কেন করবে! অন্য ছবির মতো এটাও তাঁর ছবি। আমিও একজন স্টার। নিজের মতো করে আমার ছবির প্রচারণা চালাব। সে করবে তার মতো। কে কম বা বেশি প্রচারণা চালাল সেটা আমার দেখার বিষয় নয়। তবে এটুকু বলতে পারি, শাকিবও এই সিনেমা নিয়ে আশাবাদী। শুটিংয়ের সময় তার আগ্রহটা আমি দেখেছি। আপাতত তার হাতে থাকা কয়েকটি ছবি নিয়ে সে ভীষণ ব্যস্ত’, বললেন অপু।



মন্তব্য