kalerkantho

অন্য রকম দূরবীন

৭১টি ব্যান্ডের একটি করে গান নিয়ে গত বছর ‘আমাদের ৭১’ প্রকাশ করে ব্যান্ড দূরবীন। এ বছর তারা নিয়ে এসেছে অ্যালবামটির দ্বিতীয় সংস্করণ। এর সঙ্গে দেশের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে থাকা নবীন ব্যান্ডগুলো নিয়ে বছরজুড়ে আয়োজন করছে ব্যান্ড ফেস্ট। লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন

২২ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



অন্য রকম দূরবীন

বাঁ থেকে—শাওন, শিশির, শহীদ, ফাহাদ, আইয়ুব, রাফি ও হৃদয়

গত কয়েক মাসে ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও রংপুরে ‘ব্যান্ড ফেস্ট’-এর আয়োজন করেছে দূরবীন। সর্বশেষটি হয়েছে ৯ ও ১০ ডিসেম্বর ঢাকার রাশিয়ান সেন্টার অব সায়েন্স অ্যান্ড কালচারে। অংশ নিয়েছে ২৩টি ব্যান্ড। এর আগে রংপুর ও রাজশাহীতে ১১টি করে এবং চট্টগ্রামে ১৫টি ব্যান্ড নিজেদের বিভাগে আয়োজিত এই ব্যান্ড ফেস্টে অংশ নেয়। এর মধ্যে কোনো কোনো ব্যান্ড গত বছর দূরবীনের প্রকাশিত মিক্সড ‘আমাদের ৭১’-এ গান করেছে। সেটিকে দূরবীন বলছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ব্যান্ড মিক্সড অ্যালবাম! এই ব্যান্ড ফেস্টের উদ্দেশ্য কী? ব্যান্ডটির দলনেতা ও ভোকাল শহীদ বলেন, ‘আমাদের দেশে এমন অনেক ব্যান্ড আছে, যারা দুর্দান্ত গান করে, কিন্তু সুযোগের অভাবে সামনে আসতে পারছে না। এই ব্যান্ডগুলোকে সবার সামনে তুলে ধরার জন্য আমাদের এই উদ্যোগ। সংগীতের প্রতি ভালোবাসা থেকেই কাজটি করছি। উৎসবগুলোতে নতুন ব্যান্ডগুলোর পরিবেশনা যত দেখছি, ততই মুগ্ধ হচ্ছি। এই আয়োজনে এসে তারা অনুপ্রাণিত হচ্ছে।’

উৎসবে অংশ নেওয়া ব্যান্ডগুলোকে একটি শর্ত জুড়ে দেয় দূরবীন। উৎসবে একটি হলেও দেশাত্মবোধক গান গাইতে হবে। এই আয়োজনের জন্য অনেকের প্রশংসাও পেয়েছে শহীদের ব্যান্ড। তাইতো ২০১৭ সালের উৎসবের পরিকল্পনাও করে রেখেছে তারা। জানুয়ারিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে হবে এই উৎসব। সেখানে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকটিসহ মোট ৩০টি ব্যান্ড পারফর্ম করবে। এরপর পর্যায়ক্রমে হবে দেশের বাকি বিভাগগুলোতে। কত দিন চলবে এই উৎসব? শহীদ বলেন, ‘দূরবীন যত দিন থাকবে, এই ব্যান্ড ফেস্টও তত দিন চলবে।’

ছয়টি মিক্সড অ্যালবামের পাশাপাশি এখন পর্যন্ত চারটি একক অ্যালবাম করেছে দূরবীন। ‘দূরবীন’ (২০০৬), ‘দূরবীন ২.০১’ (২০০৮), ‘দূরবীন ৩.০১’ (২০১০) এবং ‘দূরবীন ৪.০১’ (২০১৫)। এ বছর কোনো একক না এলেও ভিডিও আকারে দুটি সিঙ্গল করেছে তারা। একটি দেশাত্মবোধক ‘নান্দনিক বাংলাদেশ’, অন্যটি রোমান্টিক ‘শেষ বিকেল’। আগামী ভালোবাসা দিবসে প্রকাশের লক্ষ্যে নতুন এককের কাজ করছে ব্যান্ডটি। তিনটি গানের রেকর্ডিং শেষ। এর মধ্যে দুটি শহীদের কথা-সুরে চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গান—‘আঁততে আর কিছু নাই’ এবং ‘তোঁরা আইয়ো আঁরার বাড়িত’। অন্যটি হুমায়ূন বয়াতির কথা-সুরে ‘দমে দমে ডাকি তোরে’। ‘তোঁরা আইয়ো আঁরার বাড়িত’ চট্টগ্রামের সৌন্দর্য নিয়ে। গানটির ভিডিওর কাজ চলছে। অ্যালবামের সঙ্গে ভিডিওটিও প্রকাশ করা হবে। ব্যান্ডের আরেক ভোকাল আইয়ুব শাহরিয়ার বলেন, ‘নতুন অ্যালবামটি আমরা বিভিন্ন ধরনের গান নিয়ে সাজাচ্ছি। প্রায় এক বছর ধরে গানগুলো তৈরি করছি। কথা, সুর, সংগীতায়োজন, গায়কি—সব কিছুতেই বৈচিত্র্য খুঁজে পাবেন শ্রোতা।’

সাত সদস্যের প্রত্যেকেই গানের পাশাপাশি কোনো না কোনো কাজের সঙ্গে জড়িত। তাই রুটিন মেনেই স্টেজ শো করছে ব্যান্ডটি। প্রতি মাসে একটি টিভি লাইভ এবং দুটি স্টেজ শো। এর বাইরে বিশেষ দিনগুলোতে মঞ্চে ওঠে তারা।

২০০৩ সালের ১২ ডিসেম্বর যাত্রা শুরু করে দূরবীন। ১৩ বছর পেরিয়ে গেছে। লাইনআপেও এসেছে অনেক পরিবর্তন। একসময় আরফিন রুমি ও কাজী শুভ ছিলেন এই ব্যান্ডে! অনেক ভাঙাগড়ার পর এখন আছেন শহীদ (ভোকাল), আইয়ুব শাহরিয়ার (ভোকাল), ফাহাদ (লিড গিটার), রাফি (কি-বোর্ড), শাওন (বেইস গিটার), শিশির (ড্রামস) ও হৃদয় (রিদম গিটার)। যে স্বপ্ন নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিলেন, তার কতটা পূরণ হয়েছে? ‘আমরা চেয়েছিলাম আমাদের নিজস্ব একটা পরিচয় যেন তৈরি হয়। সেটা হয়েছে। নিজেদের শ্রোতাগোষ্ঠীও তৈরি হয়েছে। এটাকে ধরে রেখে সামনে আরো ভালো ভালো গান শ্রোতাদের উপহার দিতে চাই’—বলছিলেন বেইস গিটার বাদক শাওন। তাঁর কথার সূত্র ধরে কি-বোর্ড বাদক রাফি বলেন, ‘ব্যান্ডে যারা আছি, প্রায় সবার একক ক্যারিয়ারও আছে। কিন্তু ব্যান্ডের গুরুত্বটাই আলাদা। এখানে সবাই সবার সঙ্গে সংগীতের নানা বিষয় শেয়ার করি। একে অন্যের কাছ থেকে শিখি। সবচেয়ে বড় কথা, ভালো মিউজিশিয়ান হতে গেলে ব্যান্ডে বাজানোর কোনো বিকল্প নেই।’

 



মন্তব্য