kalerkantho


এ ছদ্মবেশে ও স্যুটকেসে

রংবেরং ডেস্ক   

১৭ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



এ ছদ্মবেশে ও স্যুটকেসে

লেডি গাগা, টেইলর সুইফট

লুকিয়ে প্রেক্ষাগৃহে নিজের সিনেমা দেখতে যাওয়া তারকাদের জন্য নতুন কিছু নয়। তবে লেডি গাগা তো আর পেশাদার অভিনেত্রী নন, মূলত গায়িকা। আগে টুকটাক অভিনয় করলেও ৪ অক্টোবর মুক্তি পাওয়া ‘আ স্টার ইজ বর্ন’-এ তিনি করেছেন দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র। স্বভাবতই ছবিটি তাঁর জন্য বিশেষ কিছু। সমালোচক ও দর্শক উভয়েরই প্রশংসা পাওয়া ছবিটি গাগা দেখেছেন সাধারণ প্রেক্ষাগৃহে, আমদর্শকের সঙ্গে বসেই। তবে কেউ যাতে তাঁকে চিনতে না পারে সে জন্য নিয়েছিলেন ছদ্মবেশ। ঠিক কী ধরনের ছদ্মবেশ নিয়েছিলেন সেটা অবশ্য ফাঁস করেননি গাগা, তবে বলেছেন সাধারণ দর্শকের সঙ্গে নিজের ছবি দেখার অভিজ্ঞতা, ‘অসাধারণ এক অনুভূতি। এটা গভীরভাবে অনুভব করার মতো ছবি, পুরোটা সময় অঝোরে কেঁদেছি। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি থেকে শেষটা খুব করুণ, এ কারণে ছবি শেষ না করেই বেরিয়ে আসি।’

গাগা আরো বলেন, মুক্তির পর এক মাসেরও বেশি সময় পার হয়ে গেলেও তিনি এখনো ডুবে আছেন ছবির চরিত্রের মধ্যেই। ছবিতে ব্যবহৃত সব পোশাক যত্ন করে রেখে দিয়েছেন ভবিষ্যতে সন্তানদের দেখাবেন বলে।

স্যুটকেসে সুইফট!

গাগার মতো নিজেকে লুকাতে হয়েছিল আরেক গায়িকা টেইলর সুইফটকেও। তবে নিজের ছবি দেখতে গিয়ে নয়, বরং পাপারাজ্জিদের চোখ এড়াতে। অনেক দিন থেকেই গায়িকার বাসার সামনে পাপারাজ্জিদের উৎপাত, অনেক পাগলাটে ভক্তও থাকে। গেল কয়েক বছরে কেউ কেউ গোপনে সুইফটের বাড়িতেও ঢুকে গিয়েছিল। এদের হাত থেকে বাঁচতে অভিনব এক বুদ্ধি করেছিলেন গায়িকা—নিজেকে লুকিয়েছিলেন স্যুটকেসের ভেতর! ঘটনা ২০১৭ সালের। হঠাৎই একটি ছবি ভাইরাল হয়। সেখানে গায়িকার দুই দেহরক্ষীকে বিশাল আকৃতির এক কালো স্যুটকেস সুইফটের বাড়ির সমানে পার্ক করা গাড়িতে তুলতে দেখা যায়। সে সময় মনে করা হচ্ছিল, বাড়ি থেকে মালামাল সরাচ্ছেন সুইফট। কিন্তু না, বছরখানেক পর ঘটনা খোলাসা করলেন গায়ক জেইন মালিক। ‘ভোগ’ ম্যাগাজিনকে ব্রিটিশ গায়ক বলেন, ‘পাপারাজ্জিদের এড়াতে স্যুটকেসে ভ্রমণ করে সুইফট।’ তবে যাঁকে নিয়ে এত কাণ্ড, সেই টেইলর সুইফট এ নিয়ে স্পিকটি নট!



মন্তব্য