kalerkantho


গুজব নাকি সত্যি?

রংবেরং প্রতিবেদক   

১৬ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



গুজব নাকি সত্যি?

২০০৬ সালে ‘কোটি টাকার কাবিন’ মুক্তির পর থেকে অপুর সঙ্গে প্রেমের গুঞ্জন রটেছিল। কিন্তু বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে ব্যাপারটি ধামাচাপা দিয়েছিলেন শাকিব খান। এমনকি ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল গোপনে বিয়ে করলেও জানতে পারেনি মিডিয়া। চুটিয়ে আট বছর সংসার করেছেন, বাবা হয়েছেন, সেটাও ছিল গোপন। কিন্তু গত বছর ১০ এপ্রিল সব গোমর ফাঁস করে দেন অপু বিশ্বাস। মিডিয়ার সামনে এসে লুকোচুরি খেলাটা শেষ করেন তিনি। এর মধ্যে দুজনের ডিভোর্সও হয়ে গেছে। শাকিব যখন সিঙ্গল, ঠিক তখন আবার খবর আসে, অভিনেত্রী বুবলির সঙ্গে প্রেমে মজেছেন। এমনকি বুবলির হাতে আঁকা ট্যাটু, যার দুই অক্ষর ‘এস বি’, সেটি নিয়েও কম জল্পনাকল্পনা হয়নি। সবাই ধারণা করেন, ‘এস’ মানে শাকিব আর ‘বি’ মানে বুবলি। কিন্তু খবরটির সত্যতা প্রকাশের আগেই আবার গুঞ্জন, বুবলির সঙ্গে নাকি শাকিবের বাজে সময় যাচ্ছে। আর তার কারণ কোনো তৃতীয় পক্ষ। তবে কি আবার কারো প্রেমে পড়েছেন এই অভিনেতা! এমন সন্দেহের আগুনে ঘি ঢেলে দিল ওপার বাংলার গণমাধ্যম জি ২৪ ঘণ্টা। তাদের বরাতে জানা যায়, লন্ডনে ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিতে কাজ করার সময় দুজনের সম্পর্ক নিয়ে গুঞ্জন শুরু। ওই সিনেমার একটি দৃশ্যে অন্তরঙ্গ হতে হয়েছিল শাকিব ও শ্রাবন্তীকে। কিন্তু পরিচালক দৃশ্যটি ‘ওকে’ বলার পরও নাকি দুজন দুজনকে বাহুবন্দি করে রাখেন! আর সেই দৃশ্যটি ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যাওয়ার পরই শ্রাবন্তী-শাকিবের সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা আরো ছড়িয়ে পড়েছে। অবশ্য শুধু জি নিউজের বরাত নয়, শাকিব-শ্রাবন্তীর মধ্যে যে বোঝাপড়াটা ভালো তার প্রমাণ আগেই জুটেছে। এই জুটির প্রথম ছবি ‘শিকারি’র শুটিংয়ে প্রায়ই শাকিবের জন্য বাসা থেকে রান্না করে আনতেন শ্রাবন্তী। এমনকি রান্না করার সময় লাইভেও আসতেন কলকাতার এই তারকা। শাকিবকে বাসায় দাওয়াত দিয়েও খাইয়েছেন। আর সেসব রান্না খেয়ে ভূয়সী প্রশংসায় মেতে উঠতেন শাকিব। এতেই কি গল্প শেষ! শ্রাবন্তী অন্য ছবির শুটিংয়ে ঢাকায় এলে শত ব্যস্ততার মধ্যেও সময় বের করে দেখা করেছেন শাকিব। ঘটনা তাহলে কী? শাকিব এখন ব্যাংককে শুটিং করায় ফোন বা হোয়াটসঅ্যাপে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তবে শ্রাবন্তীর সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে বেশ আগেই তিনি একবার মিডিয়ায় বলেছিলেন. ‘শ্রাবন্তী আমার ভালো বন্ধু। তার সঙ্গে আমার পর্দা রসায়নটাও দারুণ জমে। আমরা দুজন খোলা মনের মানুষ। এই বাইরে অন্য কিছু কেউ ভাবলে নিজ দায়িত্বে ভাববেন।’

 



মন্তব্য