kalerkantho


সেরা অভিনেত্রী

ম্যাকডোরমন্ডের দ্বিতীয়

‘থ্রি বিলবোর্ডস আউটসাইড এবিং, মিসৌরি’র মিলড্রেড চরিত্র করে দ্বিতীয়বারের মতো সেরা অভিনেত্রীর অস্কার পেলেন ফ্রান্সিস ম্যাকডোরমন্ড

৬ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ম্যাকডোরমন্ডের দ্বিতীয়

১৯৮৪ সালে ক্যারিয়ার শুরুর পরের এক দশকে ১৪টি ছবি করেছেন ম্যাকডোরমন্ড। খারাপ করেননি তবে অনেক দিন মনে রাখার মতো চরিত্র যেন পাচ্ছিলেন না। সেই অভাব পূরণ হয়েছিল ‘ফার্গো’ দিয়ে। ১৯৯৬ সালের এই সিনেমার জন্যই সেরা অভিনেত্রীর অস্কার পান। ছবিতে অন্তঃসত্ত্বা পুলিশ অফিসারের চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করেন। প্রিমিয়ার ম্যাগাজিনের বিচারে ১০০ বছরের সেরা চরিত্রের মধ্যে ২৭ নম্বরে জায়গা পায় চরিত্রটি। এত প্রশংসা পেলেও অভিনেত্রী অবশ্য বারবারই নিজের কাজ নিয়ে নিরুত্তাপ, ‘আমি আসলে রাবারের মতো। পরিচালকের কাছে আর চরিত্রের কাছে নিজেকে সঁপে দিই।’ ‘ফার্গো’ করে ব্যাপক প্রশংসা পেলেও পরে নিন্দাও কম জোটেনি কপালে। বিশেষত ‘আয়ান ফ্লাক্স’-এর জন্য রেজিতে মনোনীত হওয়ার পর। অনেক সমালোচকই ২০০৫ সালের ‘নর্থ কান্ট্রি’র পর উল্লেখযোগ্য কোনো ছবি উপহার দিতে না পারায় নানা সমালোচনায় বিদ্ধ করেছিল অভিনেত্রীকে। তাদের জন্য মোক্ষম জবাব যেন ‘থ্রি বিলবোর্ডস আউটসাইড এবিং, মিসৌরি’। ছবিতে মিলড্রেড এক মাঝবয়সী নারী। এক নির্জন রাস্তায় যার মেয়ে ধর্ষণ ও খুন হয়। অনেক দিন পেরিয়ে গেলেও যার সুরাহা হয় না। তখন পুলিশ কর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য তিনটি বিলবোর্ড স্থাপন করেন মিলড্রেড। মেয়েহারা এক মায়ের চরিত্রে ম্যাকডোরমন্ড ছিলেন অনবদ্য। এ বছর গ্লোডেন গ্লোব, বাফটার পর অস্কারেও সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ম্যাকডোরমন্ড।



মন্তব্য