kalerkantho


পদ্মাবতী হবে পদ্মাবৎ!

রংবেরং ডেস্ক   

১ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০




পদ্মাবতী হবে পদ্মাবৎ!

সঞ্জয়লীলা বানসালির ‘পদ্মাবতী’ নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। তবে সবটা যে শেষ হয়েছে এমনটা বলা যাবে না। শনিবার ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের যা সিদ্ধান্ত তাতে নতুন করে শুরু হতে পারে বিতর্ক। কারণ সিনেমাটি দেখার পর ‘পদ্মাবতী’র নাম বদলে ‘পদ্মাবৎ’ করতে বলেছে সেন্সর বোর্ড! শুধু নামবদলই নয়, ছবির পাঁচটি দৃশ্যও বদলাতে বলা হয়েছে। বলা হয়েছে ‘ঘুমার’ গানের কয়েকটি দৃশ্য বদলাতে। এসব শর্ত মানলেই শুধু ছবিটি সেন্সর পাবে। তবে ছবির কোনো দৃশ্য বাদ দিতে বলা হয়নি। সিনেমার নামবদলের এমন সিদ্ধান্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তুললেও সেন্সর বোর্ডের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘পরিচালকের স্বাধীনতা এবং সমাজের মধ্যে ভারসাম্য থাকে, এমন একটা সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।’ তবে ছবিটির মুক্তি প্রতিহত করতে যারা আন্দোলন করছিল, সেন্সর বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তের পর তারা কেউই প্রতিক্রিয়া জানায়নি। ছবির পরিচালক, অভিনেতা-অভিনেত্রী বা বলিউডের অন্য তারকারাও এখন পর্যন্ত চুপ। ২০১৭ সালের ১ ডিসেম্বর মুক্তির কথা ছিল সিনেমাটির। কিন্তু এতে রাজপুত রানি পদ্মাবতীকে অসম্মান করা হয়েছে—এই যুক্তিতে ছবিটির মুক্তি প্রতিহতের ডাক দেয় বেশ কয়েকটি সংগঠন। পদ্মাবতী চরিত্র করা দীপিকা পাড়ুকোনের মাথা কেটে আনলে পুরস্কার ঘোষণাও দেওয়া হয়। নানা জটিলতার মুখে স্থগিত হয় ছবির মুক্তি। ইতিহাসবিদরা অবশ্য বলেন, ইতিহাসে এই নামে কোনো চরিত্রের অস্তিত্বই নেই, পুরোটাই কাল্পনিক। পরিচালক বানসালি জানান, তিনি মূলত মালিক মুহাম্মদ জায়সীর ‘পদ্মাবৎ’ কাব্য অবলম্বনে সিনেমাটি তৈরি করেছেন। এমন প্রেক্ষাপটে ২৮ ডিসেম্বর আলোচনায় বসে সেন্সর বোর্ড। ছবিটি দেখানো হয় রাজপরিবারের সদস্য অরবিন্দ সিংহ, জয়পুর বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই অধ্যাপককে। এর পরই জানানো হয় নামবদলসহ অন্যান্য পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত।


মন্তব্য