kalerkantho


সাক্ষাৎকার

এক ঘণ্টার কাহিনিচিত্র আমাদের ঐতিহ্য

চারুনীড়ম টেলিভিশন কাহিনিচিত্র উৎসব’-এর উদ্বোধন হয়ে গেল গতকাল। ২০০৯ সাল থেকে নিয়মিত এ উৎসব ও পুরস্কারের অয়োজন করে আসছে চারুনীড়ম ইনস্টিটিউট। উৎসব ও নানা বিষয় নিয়ে চারুনীড়মের পরিচালক গাজী রাকায়েতের সঙ্গে কথা বলেছেন সুদীপ কুমার দীপ

১৯ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



এক ঘণ্টার কাহিনিচিত্র আমাদের ঐতিহ্য

চারুনীড়ম টেলিভিশন কাহিনিচিত্র উৎসব-এর শুরুটা কিভাবে?

এক ঘণ্টার কাহিনিচিত্র আমাদের দেশীয় ঐতিহ্য। ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে এর সঙ্গে আমরা পরিচিত। কিন্তু হুট করে ২০০৮ সালে এসে দেখি প্রায় সব কটি চ্যানেলই এক ঘণ্টার কাহিনিচিত্রের নিয়মিত প্রচার বন্ধ করে দিচ্ছে। তখনই ‘এক ঘণ্টার নাটক বাঁচাও’ কর্মসূচি হাতে নিলাম। অনেকেই আমার সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন। পরের বছরই শুরু করি ‘চারুনীড়ম টেলিভিশন কাহিনিচিত্র উৎসব’।

অসংখ্য নাটক থেকে মাত্র ২২টি নাটক দেখাবেন। নাটকগুলো বাছাই করেছেন কোন মাপকাঠিতে?

বিভিন্ন চ্যানেলের কাছে তাদের পছন্দের নাটক চেয়েছি। কেউ কেউ ব্যক্তি উদ্যোগে নাটক দিয়ে গেছেন। আমাদের একটি মনিটরিং কমিটিও আছে। তারাও খুঁজে নিয়েছে।

সব মিলিয়ে ভালো মানের ২২টি নাটক বাছাই করেছি।

বাছাইয়ের ক্ষেত্রে কোন দিকটায় গুরুত্ব দিয়েছেন?

কাহিনি, চিত্রনাট্য, ফটোগ্রাফি, অভিনয়—এই বিষয়গুলোর দিকে বেশি নজর দেওয়া হয়েছে।

কয়টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেওয়া হবে?

আমরা মোট ১২টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দিই। একেকটি ক্যাটাগরিতে পাঁচটি করে মনোনয়ন দেওয়া হয়। এর মধ্য থেকে জুরি বোর্ড বিজয়ীদের নির্বাচন করে।

এবার জুরি বোর্ডে কারা থাকছেন?

এখনো ঘোষণা করা হয়নি। ২৮ এপ্রিল পুরস্কার দেওয়া হবে। হাতে সময় আছে। তাই জুরি নির্বাচনে একটু ভাবতে চাই।

প্রদর্শনীর প্রবেশ মূল্য কত?

আমাদের কোনো স্পন্সর নেই। তাই ২০ ও ৩০ টাকা করে টিকিটের ব্যবস্থা করেছি। বলা যায়,  এটা নামমাত্র প্রবেশ মূল্য। প্রতিদিন চারটি করে নাটকের প্রদর্শনী থাকবে।

কেমন সাড়া পাচ্ছেন?

এককথায় আমরা সফল। এক ঘণ্টার কাহিনিচিত্র নির্মাণ বেড়েছে। চ্যানেলগুলোও প্রচার করছে। তবে একটা বিষয়ে জোর দিতে চাই। সেটা হলো বাজেট। আশা করি, চ্যানেলগুলো বাজেটের দিকটা আরেকটু ভাববে।

এবার চারুনীড়মের কথা বলুন...

চারুনীড়মের ৩৬তম ব্যাচ চলছে। এখন পর্যন্ত চারুনীড়ম থেকে ৬০০ ছেলেমেয়ে বের হয়েছে।   তাদের জন্য চারুনীড়ম থিয়েটার রয়েছে। সবাই এখানে প্র্যাকটিস করতে পারে। ১৫ সেপ্টেম্বর আমাদের ১০ বছর পূর্ণ হবে।


মন্তব্য