kalerkantho

যমজ দত্তক

রংবেরং ডেস্ক   

৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



যমজ দত্তক

গুঞ্জন ওঠে গত মাসেই। ম্যাডোনার মালাবি সফরের সময়।

কিন্তু সন্তান দত্তক নেওয়ার খবর অস্বীকার করে গায়িকা জানান, তিনি এসেছেন একটি বেসরকারি সংস্থার হয়ে কাজ করতে। মাস না পার হতেই মিলল গুজবের সত্যতা। মঙ্গলবার আফ্রিকার দেশটি থেকে যমজ সন্তান দত্তক নেওয়ার অনুমতি পেলেন গায়িকা। দত্তক নেওয়ার পর সন্তানদের উপযুক্ত বাড়িতে রাখবেন—এটা প্রমাণ করার পর এদিন স্থানীয় আদালত অনুমতি দেন। ফলে চার বছর বয়সী স্টেলা ও এস্টারকে নিজের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে ফিরতে পারবেন ম্যাডোনা।

রায় ঘোষণার সময় ম্যাডোনা ও যমজদের বাবা হাজির ছিলেন। স্টেলা ও এস্টার ছিল জাম্বিয়া সীমান্ত লাগোয়া মালাবির একটি আশ্রম ‘হোম ফর হোপ’-এর বাসিন্দা। সেখানকার আরেকটি শিশু ডেভিড বান্দ্রাকে ২০০৬ সালে দত্তক নিয়েছিলেন ম্যাডোনা। পরে ২০০৯ সালে মালাবি থেকে আরেকটি শিশু মার্সি জেমসকেও দত্তক নেন ‘ফ্রোজেন’ গায়িকা।

দত্তক নেওয়াসহ নানা ঘটনা নিয়ে অনেকবারই মালাবি সরকারের সঙ্গে ঝামেলায় জড়ান। এ ছাড়া বিশেষ সুবিধার বিনিময়ে দত্তক পাচ্ছেন—এ নিয়েও সমালোচনা হয়। তবে তাঁর আইনজীবী এসব উড়িয়ে দিয়ে বলেছেন, আদালত মানবিক নানা কার্যক্রমের জন্য ম্যাডোনার প্রশংসা করেছেন।

যমজ সন্তানের সঙ্গে একজন সরকারি প্রতিনিধিও পাঠাচ্ছে মালাবি সরকার। শিশুদের কী ধরনের সুবিধা দেওয়া হচ্ছে তা নিয়ে প্রতিবেদন পাঠাবেন তিনি।   


মন্তব্য