kalerkantho


চোরাচালানের রুট বেনাপোল

আট মাসে তিন মণ সোনা জব্দ

বিশেষ প্রতিনিধি, যশোর   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



যশোরের বেনাপোল সীমান্তে চলতি বছরের আট মাসে (আগস্ট পর্যন্ত) আইন প্রয়োগকারী সংস্থা তিন মণ সোনা জব্দ করেছে। এই সোনার দাম প্রায় ৬০ কোটি টাকা।

সীমান্ত সূত্রে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক একটি চোরাচালানচক্র বাংলাদেশকে রুট হিসেবে ব্যবহার করে বেনাপোল দিয়ে কোটি কোটি টাকার সোনা ভারতে পাচার করছে। সম্প্রতি ভারতে সোনার ওপর নতুন করে অতিরিক্ত শুল্ক ধার্যের কারণে সোনা পাচার অস্বাভাবিক বেড়েছে। এখন বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে বাহকরা পাসপোর্টধারী যাত্রী সেজে মহাজনদের নির্দেশ মতো সোনা বহন করে ভারতের মহাজনদের হাতে তুলে দিচ্ছে। অন্যদিকে বেনাপোলের গাতিপাড়া, বড়আঁচড়া, সাদিপুর, পুটখালী, শিকড়ি, দৌলতপুর সীমান্ত দিয়ে মণ মণ সোনা পাচার হচ্ছে।

স্থানীয় একটি প্রভাবশালীচক্র সোনা পাচারের সঙ্গে যুক্ত হয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এই চক্রের সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী কর্তৃপক্ষের একটি অংশের যোগসাজশ রয়েছে। এদের সহায়তায় অভিনব কায়দায় সোনার চালান কলকাতা, গুজরাট, দিল্লি, মুম্বাই পৌঁছে যাচ্ছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, আন্তর্জাতিক পাচারচক্র দুবাই, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর থেকে প্রতিটি ১১৬ দশমিক ৬৪ গ্রাম ওজনের সিল মারা সোনার বার কিনে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট দিয়ে বিমানযোগে বাংলাদেশে নিয়ে আসছে। পরে হাত বদলের মাধ্যমে সেই সোনা ভারতে পাচারের উদ্দেশ্যে ক্যারিয়ারদের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে। আর এ ক্ষেত্রে যাতায়াতব্যবস্থা সুবিধার জন্য বেনাপোল সীমান্তকে অন্যতম পাচার রুট হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেনাপোল শুল্ক বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘সোনা লুকিয়ে বহন করা হয়। এ কারণে সব সময় তা ধরা পড়ে না।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেনাপোল সীমান্তে কর্মরত বিজিবির একজন কর্মকর্তা বলেন, ‘সোনা পাচারের ব্যাপারে আমরা সতর্ক আছি।’



মন্তব্য