kalerkantho


ময়লার জাঁতাকলে স্টেডিয়াম

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



ময়লার জাঁতাকলে স্টেডিয়াম

হবিগঞ্জ শহরে নবনির্মিত আধুনিক স্টেডিয়াম এলাকাসহ আশপাশের সড়কের দুপাশে এভাবেই ময়লা ফেলছে পৌর কর্তৃপক্ষ। ছবি : কালের কণ্ঠ

হবিগঞ্জ শহরে নবনির্মিত আধুনিক স্টেডিয়াম এলাকাসহ আশপাশের সড়কের দুপাশ যেন ময়লার ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। দৃষ্টিনন্দন এ স্টেডিয়াম এলাকায় ময়লা-আবর্জনা স্তূপ করে রাখায় ক্রীড়ামোদীরা তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অথচ হবিগঞ্জ শহরের এ স্থানটিই সবচেয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখন ময়লা আর দুর্গন্ধে ওই এলাকা দিয়ে চলাচল করাই দায়। যে পৌরসভার দায়িত্ব শহরবাসীর জন্য নির্মল পরিবেশ সৃষ্টি করা, খোদ তারাই এ অবস্থা তৈরি করেছে। কারণ পৌরভার সব ময়লা-আবর্জনা ডাম্পিং করা হচ্ছে এখানে।

হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহিরের প্রচেষ্টায় তৈরি হয় আধুনিক স্টেডিয়াম। ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এটি উদ্বোধন করার পর জাঁকজমক পরিবেশে অনেক খেলাধুলার আয়োজন করা হয়। কিন্তু ময়লা-আবর্জনার কারণে চারপাশের পরিবেশ নষ্ট হওয়ায় ইদানীং স্টেডিয়ামমুখী হতে অস্বস্তি বোধ করছেন ক্রীড়ামোদীরা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, অত্যাধুনিক এ স্টেডিয়ামটির সব সৌন্দর্যই যেন নষ্ট করে দিয়েছে ময়লার স্তূপ। স্টেডিয়াম গেট, কিবরিয়া অডিটরিয়ামের দেয়াল ও আনসার ক্যাম্পসংলগ্ন স্থানেও ময়লার স্তূপ গড়ে তোলা হয়েছে। প্রতিদিন শহরের সব ময়লা এখানে নিয়ে আসে পৌরসভার গাড়িগুলো। দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত সেখানে ময়লা ফেলা হয়। জেলা সদরের এই বাইপাস সড়ক দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য গাড়ি যাতায়াত করে। চলাচল করে হাজারো মানুষ। তাদের সবাইকে দুর্গন্ধে নাক-মুখ চেপে চলাচল করতে হচ্ছে।

ময়লা-আবর্জনার কারণে স্টেডিয়ামের সামনের বাইপাস সড়ক দিয়ে প্রতিদিন যাতায়াতকারী স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদেরও চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তারা নাকে রুমাল দিয়ে এলাকাটি অতিক্রম করছে।

পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র দিলীপ দাস বলেন, পৌরসভার ময়লা ফেলার নিজস্ব জায়গা বানিয়াচংয়ের আতুকুড়া এলাকায়। স্থানীয় লোকজনের বাধায় সেখানে ময়লা ফেলা যাচ্ছে না। তাই বাধ্য হয়ে স্টেডিয়াম এলাকায় আবর্জনা জমানো হচ্ছে।

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) হবিগঞ্জ শাখার সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সদস্য তোফাজ্জল সোহেল বলেন, ‘স্টেডিয়ামের পাশে ময়লা না ফেলতে পৌর কর্তৃপক্ষকে বারবার অনুরোধ করেও কোনো লাভ হয়নি।’

হবিগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন কলি বলেন, ‘খেলাধুলার জন্য শুধু স্টেডিয়াম থাকলেই চলবে না, সুন্দর পরিবেশও নিশ্চিত করতে হয়। কিন্তু পৌরসভার ময়লা ফেলার জন্য আমরা সুন্দর পরিবেশ পাচ্ছি না। বড় ধরনের কোনো আয়োজন করলে বাইরে থেকে আসা খেলোয়াড়রা অস্বস্তিবোধ করছেন।’

এ বিষয়ে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক ফজলুল জাহিদ পাভেল বলেন, ‘এভাবে পরিবেশ দূষণ করা ঠিক হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে আগামী মিটিংয়ে আলোচনা করা হবে।’



মন্তব্য