kalerkantho


অর্থ আত্মসাতে পেশকারের সাজা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



দুদকের মামলায় ফরিদপুরে স্ত্রীসহ শরীয়তপুরের ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকারকে কারা ও অর্থদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ফরিদপুরের বিশেষ জজ আদালতের বিচারক মতিয়ার রহমান গতকাল মঙ্গলবার সকালে এ রায় দেন। জানা যায়, শরীয়তপুরের ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার ও শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জিএম শাখার কর্মচারী মো. ইমাম উদ্দিনকে ২৮ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ৮৯ লাখ ৯৪ হাজার ২৪ টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে আরো সাত মাস ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে তাঁকে সহায়তা করার জন্য তাঁর স্ত্রী শরীয়তপুরের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের অফিস সহকারী কমলা আক্তারকে আট বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড এবং অনাদায়ে আরো দেড় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। রায় ঘোষণার সময় ইমাম উদ্দিন ও তাঁর স্ত্রী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর তাঁদের সরাসরি কারাগারে নেওয়া হয়। এ ব্যাপারে দুদকের আইনজীবী মজিবর রহমান বলেন, ২০১০ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৫ সালের ২৬ মে পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের পেশকার হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ইমাম উদ্দিন তাঁর স্ত্রীর সহায়তায় আদালতের অর্থদণ্ড বাবদ প্রাপ্ত ৮৯ লাখ ৯৪ হাজার ২৪ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা না দিয়ে আত্মসাৎ করেন। এ অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলা হয়।



মন্তব্য