kalerkantho


ঝিকরগাছার কলাগাছি গ্রাম

এক বছরে ১০ বাল্যবিয়ে

বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার একটি গ্রাম কলাগাছি। গত এক বছরে এই গ্রামে অন্তত ১০টি বাল্যবিয়ে হয়েছে। সর্বশেষ গত ২০ জুলাই একটি বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এ ঘটনায় প্রশাসনকে খবর দেওয়ার সন্দেহে জাকির হোসেন নামের এক যুবককে পিটিয়ে আহত করা হয়। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসা নেন। পরে তিনি এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা করেন।

এই ১০ বাল্যবিয়ের একটিও স্থানীয়ভাবে হয়নি। আদালত ও নোটারি পাবলিকে বর-কনের বয়স এফিডেভিটের মাধ্যমে বাড়িয়ে জেলা শহরের কাজি অফিসগুলোতে এসব বিয়ে হয়েছে। এই বর-কনেদের বয়স ১২ থেকে ১৭ বছরের মধ্যে।

কলাগাছির এক বরের (১৬) বাবা বলেন, মোবাইল ফোন আর ফেসবুকের কারণে ছেলে-মেয়েরা বখে যাচ্ছে। তাই দ্রুত (কম বয়সে) তাদের বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাঁর ছেলের বিয়েও আদালতে বয়স এফিডেভিটের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়েছে। শিক্ষার অভাবে বাল্যবিয়ে বাড়ছে বলে মনে করেন স্থানীয় নাভারণ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য কলাগাছি গ্রামের নুরুন নাহার টুনি। এ জন্য তিনি রাজনৈতিক নেতাদেরও দোষেন।

ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘অসাধু আইনজীবীরা অর্থের বিনিময়ে অবৈধ কোর্ট ম্যারেজ (বাল্যবিয়ে) করিয়ে থাকেন। এর পরও বাল্যবিয়ে বন্ধে প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে।’



মন্তব্য