kalerkantho

সড়ক যেন মিনি খাল

মোহাম্মদ আলী শিপন, বিশ্বনাথ (সিলেট)   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সড়ক যেন মিনি খাল

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার রামপাশা বৈরাগী-সিংগেরকাছ বাজার সড়কের বিভিন্ন স্থানে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। ছবিটি রহমাননগর এলাকা থেকে তোলা। ছবি : কালের কণ্ঠ

যথাসময়ে সংস্কার না করায় সিলেটের বিশ্বনাথের রামপাশা-বৈরাগী-সিংগেরকাছ সড়কটি যেন মিনি খালে পরিণত হয়েছে। এতে জনসাধারণের ভোগান্তির শেষ নেই। সড়কের বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত। এসব গর্তে বৃষ্টির পানি জমে কাদায় একাকার। এর মধ্যেই ঝুঁকি নিয়ে চলতে হচ্ছে বাস, ট্রাক, অটোরিকশা, মোটরসাইকেল ও লেগুনাচালকদের। যাত্রীদের ভোগান্তিতো আছেই। এ সড়ক দিয়েই প্রতিদিন বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও হাজার হাজার মানুষ যাতায়াত করে। সড়কের বেহালের কারণে তাই প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।

রামপাশা-বৈরাগী বাজার-সিংগেরকাছ বাজার সড়কে ২০১৫ সালে সংস্কারকাজ হলেও কিছুদিন যেতে না যেতেই সড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং উঠে সৃষ্টি হয় গর্ত। জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক দিয়ে বিশ্বনাথ, জগন্নাথপুর ও ছাতক এই তিন উপজেলার শত শত মানুষ প্রতিদিন যাতায়াত করে। সড়কের বৈরাগী বাজার ও রহমান নগর এলাকায় যে বিশাল গর্ত সৃষ্টি হয়েছে তা দেখলে মনে হয় যেন মিনি পুকুর। রহমান নগর গ্রামের কিছুু লোক পানি নিষ্কাশনের সরকারি নালাটি বন্ধ করে দেওয়ায় এই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করে। বছরের ১২ মাসই এখানে জলাবদ্ধতা থাকে। ফলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। তবুও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়ে চলাচল করছে জনসাধারণ। ওই সড়ক দিয়ে যাতায়াতকারী বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী মিয়াদ আহমদ বলেন, ‘সড়কের গর্তগুলো দেখলে মনে হয় একটি খাল। সড়কটি সংস্কার করা অত্যন্ত জরুরি।’ ব্যবসায়ী জামাল আহমদ, মনির হোসেনসহ বেশ কয়েকজন বলেন, এত বড় বড় গর্ত হয়েছে সড়কে অথচ কোনো জনপ্রতিনিধি খবরও নিচ্ছে না। প্রায় সময় সড়কে দুর্ঘটনা ঘটছে।’ বাসচালক সাদিক মিয়া বলেন, ‘সড়কে গর্তের কারণে প্রায়ই গাড়ির যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যায়।’ অটোরিকশাচালক নুরুল ইসলাম বলেন, ‘জীবিকার তাগিদে গাড়ি না চালিয়ে পারি না। তাই বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়েই এ সড়কে গাড়ি চালাই।’

এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান সোহেল আহমদ চৌধুরী বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। অতি শিগগিরই এ সড়কের সংস্কারকাজ করা হবে।’ উপজেলা প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘গতকাল বুধবার সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। শিগগিরই সমস্যার সমাধান হবে বলে আশা করি।’



মন্তব্য