kalerkantho


চোর সন্দেহে গণপিটুনি সৈয়দপুরে যুবক নিহত

সিঁধ কেটে চুরির সময় লোকজন ধরে গণপিটুনি দেয়

সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি   

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



নীলফামারীর সৈয়দপুরে গণপিটুনিতে জাবেদ আলী নামের এক চোর নিহত হয়েছে। গত সোমবার রাতে উপজেলার দক্ষিণ সোনাখুলী পিয়নপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে।

জাবেদ ওই উপজেলার উত্তর কুমারগাড়ীর মো. জিকরুল হকের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সৈয়দপুর ও নীলফামারী থানায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চুরি, বাড়িতে চুরিসহ বিভিন্ন অভিযোগে একাধিক মামলা আছে।

জানা যায়, সোমবার রাতে জাবেদ তার সঙ্গীদের নিয়ে দক্ষিণ সোনাখুলী পিয়নপাড়ায় চুরি করতে যায়। প্রথমে তিনি ওই গ্রামের অমল চন্দ্র রায়ের ঘরে সিঁধ কাটে। পরে পাশের বীরেন চন্দ্র রায়ের ঘরেও সিঁধ কাটে। এ সময় পাশের বাড়ির লোকজন চোরদের উপস্থিতি টের পেয়ে চিৎকার করে ও জাবেদকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আশপাশের শত শত লোক বীরেনের বাড়ির এলাকায় জড়ো হয়ে জাবেদকে ধরে পিটুনি দেয়। একপর্যায়ে সে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মোহাম্মদ আলী গ্রাম পুলিশের দফাদার মো. সাইয়াকুল ইসলামকে ঘটনাটি জানান। পরে দফাদার সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ মো. রেজাউল ইসলামকে নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান। এ সময় তাঁরা মারাত্মক আহত অবস্থায় চোর জাবেদকে উদ্ধার করে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে সৈয়দপুর ১০০ শয্যার হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে জরুরি বিভাগে তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

পরে তাকে সৈয়দপুর থানায় নেওয়া হয়। থানায় নিয়ে যাওয়ার পর জাবেদ বুকে প্রচণ্ড ব্যথা অনুভব করলে দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। পরে সৈয়দপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আব্দুস ছোবহান স্বজনদের উপস্থিতিতে লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন।

সৈয়দপুর থানার ওসি মো. শাহজাহান পাশা জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনকারী সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল জানান, সিঁধ কেটে চুরির সময় লোকজন ধরে গণপিটুনি দেয়। এতে চোর জাবেদের মৃত্যু হয়েছে।



মন্তব্য