kalerkantho


কলাপাড়ায় বখাটের ছুরিকাঘাতে ছাত্রী গুরুতর জখম

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



কলাপাড়ায় প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক বখাটে নবম শ্রেণির স্কুলছাত্রীকে ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত করেছে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলার ধুলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ ছুরিকাঘাতের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় বখাটে মো. নাঈম হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সে একই ইউনিয়নের পূর্ব ধুলাসার গ্রামের দিনমজুর সোলায়মান মিয়ার ছেলে। 

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক মাস ধরে নাঈম ওই ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করে আসছিল। এ নিয়ে এলাকার জনপ্রতিনিধিসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিরা একাধিক সালিস-বিচার করেছেন। এ সময় আর কখনো উত্ত্যক্ত করবে না মর্মে নাঈম অঙ্গীকারও করেছিল। কিন্তু কয়েক দিন যেতে না যেতেই আবারও সে উত্ত্যক্ত করতে শুরু করে। এর প্রতিবাদ করায় শনিবার সকালে বিদ্যালয়ের ফটকের সামনে একা পেয়ে ওই ছাত্রীর পেটে ছুরি ঢুকিয়ে দেয় নাঈম। পরে ডাকচিৎকার শুনে বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও স্থানীয়রা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদিকে ঘটনার পর শিক্ষার্থীদের সহায়তায় বখাটে নাঈমকে আটক করে মহিপুর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

কলাপাড়া হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা জে এইচ খান লেলিন জানায়, ছুরির পুরো অংশ পেটের মধ্যে ঢুকেছে। পাঁচ-ছয় ইঞ্চি জায়গা নিয়ে জখম হয়েছে। প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, মেয়েটির জরায়ু ও মূত্রথলিতে মারাত্মক ক্ষত সৃষ্টি হয়েছে। সে শঙ্কামুক্ত নয়। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শেরে-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ধুলাসার বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইব্রাহীম শিকদার বলেন, ‘আমরা এ ঘটনার ন্যায্য বিচার দাবি করছি।’ এ ব্যাপারে ধুলাসার ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আ. জলিল আকন বলেন, ‘অপরাধীকে কোনো ছাড় দেওয়া চলবে না। আমরা এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই।’

মহিপুর থানার ওসি মিজানুর রহমান জানান, বখাটে নাঈমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 



মন্তব্য