kalerkantho


ডোমারে প্রধান শিক্ষক পদায়নে জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘনের অভিযোগ

নীলফামারী প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় জ্যেষ্ঠতা লঙ্ঘন করে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষক পদের জন্য সুপারিশ করেছেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। বঞ্চিতদের অভিযোগ, জ্যেষ্ঠতার তালিকায় প্রথম দিকে নাম থাকলেও শিক্ষা কর্মকর্তা ঠুনকো অজুহাত দেখিয়ে তাঁদের দায়িত্ব প্রদান থেকে বঞ্চিত করেছেন।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের সহকারী শিক্ষকের জ্যেষ্ঠতার তালিকায় ৫ নম্বরে রয়েছেন চিকনমাটি দোলাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুরাইয়া বিলকিস। কিন্তু তালিকায় মন্তব্যের ঘরে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা লিখেছেন, ‘ইতিপূর্বে একাধিকবার দায়িত্ব নিতে অসম্মতি জানিয়েছেন সুরাইয়া বিলকিস।’

এ বিষয়ে অভিযোগ করে সুরাইয়া বিলকিস বলেন, ‘একটা সময় আমার সাময়িক অসুবিধা থাকায় দায়িত্ব নিতে চাইনি। তবে পরবর্তী সময়ে তা প্রত্যাহার করে দায়িত্ব নেওয়ার বিষয়ে সম্মতি জানিয়েছি। চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে আমাকে বাদ দেওয়ার জন্য শিক্ষা কর্মকর্তা ওই মনগড়া কথাটি লিখেছেন। এ ব্যাপারে গত ২৮ আগস্ট জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে আমি অভিযোগ দাখিল করেছি।’

একই ধরনের অভিযোগ করেন, তালিকার ৭ নম্বরে থাকা হলহলিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নূরজাহান বেগম ও ১১ নম্বরে থাকা মিরজাগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মাগফেরা বেগম।

তাঁরা বলেন, সাময়িক অসুবিধার জন্য তাঁরা একটা সময় দায়িত্ব নিতে অসম্মতি জানিয়েছিলেন। এখন সে সমস্যা কেটে গেছে। এরপর এ বিষয়ে আবেদন করলে ২০১৭ সালের ৪ জুনের জ্যেষ্ঠতার তালিকায় ‘পূর্বের অসম্মতি এবং পরবর্তীতে সম্মতি’ কথাটি উল্লেখসহ তাঁদের নাম আসে। এর পরও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পদায়নে তাঁদের তালিকা থেকে বাদ দিয়েছেন।

বঞ্চিতরা জানান, উপজেলা থেকে ১৩৩ জন জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষকের নাম পাঠানো হয়। এর মধ্যে ৬৫ জনের চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষকের পদে পদায়নের অনুমতি আসে।

এ বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আমির হোসেন বলেন, ‘আমি মিটিংয়ে আছি, পরে কথা বলব।’ পরে তাঁর মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ওসমান গণি বলেন, ‘অভিযোগের বিষয়টি মন্ত্রণালয়কে জানানো হবে। আশা করি, পরবর্তী সময়ে তাঁদের দায়িত্ব পাওয়ার সুযোগ থাকবে।’

 



মন্তব্য