kalerkantho

মাগুরা জেলা যুবদলের নতুন কমিটি

একাংশে অসন্তোষ

মাগুরা প্রতিনিধি   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ককে সভাপতি করে গঠিত নতুন কমিটি নিয়ে মাগুরা জেলা যুবদলের একাংশে অসন্তোষ তৈরি হয়েছে।

দলীয় সূত্র জানায়, ২০১২ সালের অক্টোবরে জেলা আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় যুবদল। যেখানে আহ্বায়ক করা হয় যুবনেতা অ্যাডভোকেট ওয়াসিকুর রহমান কল্লোলকে। ঘোষিত কমিটি নিয়ে ব্যাপক অসন্তোষ তৈরি হয় তখনই। ২৩ দিনের মাথায় বাতিল হয় এই কমিটি। কার্যত তার পর থেকে যুবদল ছিল কমিটিহীন। স্থবির হয়ে পড়ে সংগঠনের কার্যক্রম। সম্প্রতি আগামী নির্বাচন ও সম্ভাব্য আন্দোলনকে সামনে রেখে দলটির নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে নতুন করে কমিটি দেওয়ার প্রস্তাব যায় কেন্দ্রে। যার পরিপ্রেক্ষিতে গত ১ জুন কেন্দ্র থেকে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। যেখানে সভাপতি করা হয়েছে ছয় বছর আগে বিলুপ্ত কমিটির আহ্বায়ক ওয়াসিকুর রহমান কল্লোলকে। সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ হোসেনকে। এই কমিটি ঘোষণার পর ফের অসন্তোষ তৈরি হয়েছে নেতাকর্মীদের মধ্যে। গত শনিবার যুবদলের একাংশ মাগুরা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষিত কমিটিকে ‘গোপন ও পকেট কমিটি’ দাবি করে অবিলম্বে তা বাতিলের দাবি জানায়।

সম্মেলনে পদত্যাগের ঘোষণা দেন জেলা যুবদলের কেন্দ্র ঘোষিত কমিটির সহসভাপতি শহিদুল হাসান রূপক। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান পিকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুজ্জামান শামীম, আমিরুল ইসলাম, বিপ্লব হোসেন, তানজেল হোসেন ও সুমন হোসেন।

বক্তারা দাবি করেন, দলের ত্যাগী নেতাদের বাদ দিয়ে যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটি গত ১ জুন জেলা কমিটি ঘোষণা করেছে। এই কমিটি গঠনে যুবদলের জ্যেষ্ঠ ও পরীক্ষিত ত্যাগী নেতাদের কোনো মতামত নেওয়া হয়নি। এমনকি জেলা বিএনপির নেতারা পর্যন্ত এটি জানেন না।

সদ্য ঘোষিত কমিটির সভাপতি ওয়াসিকুর রহমান কল্লোল বলেন, ‘আমি রাজনৈতিক কারণে কারাবরণসহ জুলুম-নির্যাতন সহ্য করেছি। সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ একজন পরীক্ষিত ও ত্যাগী নেতা। এ কারণে একে অযোগ্য কমিটি বলার কোনো যুক্তি নেই।’

 



মন্তব্য