kalerkantho


পরিবেশদূষণ

ফেব্রুয়ারিতে ৪১ প্রতিষ্ঠানকে ২ কোটি টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



পরিবেশদূষণের অভিযোগে কেবল ফেব্রুয়ারি মাসেই ৪১টি প্রতিষ্ঠানকে এক কোটি ৯৭ লাখ ৫৪ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করেছে পরিবেশ অধিদপ্তর। পরিবেশদূষণবিরোধী অভিযান ও পরিবেশ সংরক্ষণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট) এই ক্ষতিপূরণ ধার্য করেন।

পরিবেশ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, এর আগে নিয়মিত মনিটরিং কার্যক্রমের অংশ হিসেবে মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইং ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, টাঙ্গাইল, নরসিংদী, গাজীপুরসহ বিভিন্ন জেলার নানা ধরনের প্রতিষ্ঠান যেমন—ডায়িং, ওয়াশিং, সোয়েটার, বোর্ড মিল, কর্কসিট, জুতা তৈরি, চক তৈরি, কেমিক্যালস কারখানা, ওয়ার্কশপ, চা প্রসেসিং, রাইস মিল, ইটভাটা ইত্যাদি পরিদর্শন করেন। পরিদর্শনকালে দেখা যায়, কারাখানাগুলো তরল বর্জ্য পরিশোধনাগার (ইটিপি) ব্যতীত বা ইটিপি বন্ধ রেখে বা কখনো কখনো ত্রুটিপূর্ণ ইটিপির মাধ্যমে পরিচালিত হচ্ছে। এতে তরল বর্জ্য সরাসরি নির্গমন করে পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতি করতে দেখেন মনিটরিং অ্যান্ড এনফোর্সমেন্ট উইং কর্মকর্তারা। এ ছাড়া অবস্থানগত বা পরিবেশগত ছাড়পত্র ছাড়া কোনো কোনো কারখানা এবং ইটভাটা পরিচালনা করতে দেখা যায়। পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতি করায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে নোটিশের মাধ্যমে পরিবেশ অধিদপ্তরের সদর দপ্তর এনফোর্সমেন্ট উইংয়ে তলব করে শুনানি করা হয়। শুনানি শেষে কারখানা বা প্রতিষ্ঠানগুলোকে জরিমানা করা হয়। তা ছাড়া পরিবেশ অধিদপ্তরের ঢাকা অঞ্চল কার্যালয় ও ঢাকা গবেষণাগার থেকে পাঠানো প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বিভিন্ন দূষণকারী কারখানা বা প্রতিষ্ঠানকে এনফোর্সমেন্ট কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়।

পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. মোজাহিদুর রহমান জানান, কারখানাগুলোকে ক্ষতিপূরণ আরোপের পাশাপাশি প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ইটিপি নির্মাণ ও পরিবেশগত ছাড়পত্র গ্রহণ, ইটিপি থাকলে তা সার্বক্ষণিক কার্যকর রেখে তরল বর্জ্যের মানমাত্রা বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ বিধিমালা, ১৯৯৭ অনুযায়ী রেখে সঠিকভাবে ইটিপি পরিচালনার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ইটভাটার ক্ষেত্রে ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) আইন ২০১৩ অনুযায়ী ভাটার অবস্থান গ্রহণযোগ্য না হলে তা উপযুক্ত বা পরিবেশবান্ধব স্থানে স্থানান্তর করে বিধি মোতাবেক অবস্থানগত বা পরিবেশগত ছাড়পত্র গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়।

 



মন্তব্য