kalerkantho


কাঁচপুর সেতুতে ভূতুড়ে আবহ

সড়কবাতি না থাকায় বেড়েছে চুরি-ছিনতাই

সোনারগাঁ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সোনারগাঁর কাঁচপুর সেতুর ওপর দীর্ঘদিন ধরে সড়কবাতি না থাকায় চুরি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড ব্যাপক হারে বেড়েছে। সব জেনেও পথচারীর নিরাপত্তায় কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। এলাকাবাসী ও যাত্রীরা জানায়, যাতায়াতে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের কাঁচপুর সেতুটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সেতুর ওপর দিয়ে প্রতিদিন উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ৩৭টি সড়কের হাজার হাজার পরিবহন চলাচল করে। ৮-১০ বছর ধরে সেতুর দুই পাশে সড়কবাতি না থাকায় সন্ধ্যার পরই ওই এলাকায় ভূতুড়ে পরিবেশের সৃষ্টি হয়। প্রায় সময়ই চুরি-ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর (সওজ) কার্যালয় থেকে কিছু দূর এগোলেই কাঁচপুর সেতুটি। বছরের পর বছর ধরে সেতুর দুই পাশে সড়কবাতি না থাকলেও এ নিয়ে কারো মাথাব্যথা নেই।

গতকাল সোমবার কাঁচপুর সেতু এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, পথাচারী ও গাড়ির চালকরা অন্ধকারের মধ্যে চলাচল করছে। এ সময় কাঁচপুর সেনপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আবুল খায়ের বলেন, সন্ধ্যা হলেই এ এলাকায় ভূতুড়ে পরিবেশের সৃষ্টি হয়। আলো না থাকায় অহরহ চুরি, ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। পুরান কাঁচপুর গ্রামের বাসিন্দা আবুল বাশার বলেন, গত ছয় মাসে এখানে ১৫টি ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। ছিনতাইকারীরা বহাল তবিয়তে তাদের কার্যক্রম চালালেও পুলিশ নির্বিকার। কাঁচপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকার দোকানদার আমীর হোসেন বলেন, সন্ধ্যা হলেই পথচারীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মুঠোফোনসহ টাকা-পয়সা হাতিয়ে নিচ্ছে ছিনতাইকারীরা।

অনুসন্ধান চালিয়ে জানা যায়, ওই সেতু দিয়ে রাতে বাসায় ফেরার পথে কাঁচপুর হাইওয়ে থানার এক কনস্টেবলসহ এ পর্যন্ত তিনজন ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হয়েছেন।

কাঁচপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোশারফ ওমর বলেন, ‘জনসাধারণের চলাচলের জন্য এখানে সড়কবাতি লাগানো খুবই জরুরি। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।’ কাঁচপুর হাইওয়ে থানার ওসি আব্দুল কাইউম সর্দার বলেন, এ বিষয়ে সওজের কর্মকর্তাদের অবহিত করা হবে। নারায়ণগঞ্জ সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আলিউল হোসেন বলেন, অচিরেই সেতুর দুই পাশে সড়কবাতি স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নারায়ণগঞ্জ-৩ সোনারগাঁ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, কাঁচপুর এলাকায় সড়কবাতি স্থাপনের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে। অনুমোদন পেলে শিগগিরই বাতি স্থাপনের কাজ শুরু হবে।

 

 



মন্তব্য