kalerkantho


সুন্দরবনে দস্যুদের সশস্ত্র হামলা

বন্দুকযুদ্ধের জেরে চার জেলেকে মার

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



সুন্দরবনের কটকার বন্দেআলী খালে জলদস্যু বাহিনীর সশস্ত্র হামলায় চার জেলে আহত হয়েছেন। পাথরঘাটা থেকে ১৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে গত সোমবার দুপুর ১টায় এ ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা দাবি করে, পাথরঘাটার কাছে সাগর মোহনার বিহঙ্গ চরে র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত দুজন তাদের দলের লোক। তাদের ধরিয়ে দেওয়ার জন্য জেলেদের দোষারোপ করে মারধর করা হয়।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী মঙ্গলবার দুপুরে বন্দিদশা থেকে ফিরে আসা জেলেদের বরাত দিয়ে জানান, চার জেলে বন্দেআলী খালের কাছে জাল ফেলে অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় বনের মধ্যে অবস্থানকারী দস্যু বাহিনীর সদস্যরা তাঁদের ইশারায় কাছে ডাকে। কূলে এলে জেলে ট্রলারে উঠে প্রথমে রান্না করা খাবার খায়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ট্রলারে থাকা চারজনের হাত-পা বেঁধে বনের মধ্যে নিয়ে পাইপ, রড ও রামদা দিয়ে বেদম প্রহার করে। তারা নিজেদের মামা-ভাগ্নে বাহিনীর সদস্য বলে দাবি করে। দস্যুদলের অভিযোগ, একই দিন সকালে পাথরঘাটায় র‌্যাব-৮-এর অভিযানকালে নিহত দুজন তাদের বাহিনীর সদস্য। জেলে আবদুর রাজ্জাক হাওলাদার তাদের র‌্যাবের কাছে ধরিয়ে দিয়েছেন। বেদম মারধরের একপর্যায়ে সুন্দরবনের কচিখালী ক্যাম্পের ফোর্স অভিযান শুরু করে। ডাকাতদল তাঁদের ছেড়ে বনের গহিনে পালিয়ে যায়।

আহত জেলেদের মঙ্গলবার রাত ৩টায় পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁরা হলেন আব্দুর রাজ্জাক হাওলাদার, মো. জাকারিয়া, আ. কুদ্দুস ও শাহজাহান। তাঁদের বাড়ি বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার হরিণঘাটায়। এর মধ্যে তিনজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন। আব্দুর রাজ্জাকের অবস্থা গুরুতর।

কোস্ট গার্ডের পশ্চিমাঞ্চলের অপারেশন কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার মাহদীন গতকাল বিকেলে জানান, সুন্দরবনের কচিখালী ক্যাম্পের ফোর্স গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গিয়ে আবদুর রাজ্জাকসহ ৯ জেলেকে দস্যুদলের কবল থেকে উদ্ধর করে বন বিভাগের কাছে হস্তান্তর করে। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাতদল পালিয়ে যায়। সন্ধ্যা ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত অভিযান চলে।


মন্তব্য