kalerkantho


খালেদার মুক্তি দাবি

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৭ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



“খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে তাঁকে রাজনীতির ময়দান থেকে সরাতেই সরকার ‘ফরমায়েশি’ রায় দিয়ে কারাগারে আটকে রেখেছে। সরকার তাঁকে শুধু আটকে রেখেই ক্ষান্ত হয়নি, এখন তাঁর মুক্তি নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে।” দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার দেশব্যাপী অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে এসব কথা বলেন বক্তারা। নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

নরসিংদী : প্রেস ক্লাবের সামনে গতকাল দুপুরে আয়োজিত মানববন্ধনে বিএনপির মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক জয়নুল আবেদীন, জেলা জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা, রোকেয়া আহমেদ লাকি, সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন মাস্টার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশীদ, শহর বিএনপির সভাপতি গোলাম কবির কামাল, জেলা যুবদলের আহ্বায়ক মহসীন হোসাইন বিদ্যুৎ, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান মল্লিক, আকবর হোসেন, নজরুল ইসলাম ভূঁইয়াসহ কয়েক শ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিল।

সিলেট : জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে ও মহানগর সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আরিফুল হক চৌধুরী, মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন, জেলা সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী প্রমুখ।

ঠাকুরগাঁও : জেলা বিএনপির নেতাকর্মীদের গতকাল দুপুরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশ তাদের কাছ থেকে ব্যানার কেড়ে নেয়। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে বাধা উপেক্ষা করে কর্মীরা কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধনের জন্য প্রস্তুত হলে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় পুলিশের ওপর ইটপাটকেল ছুড়ে বিএনপিকর্মীরা। জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান পুলিশি হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘সরকার পুলিশি জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে’। তবে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ বলেন, ‘শহরের আইন-শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে ও জননিরাপত্তার স্বার্থে রাস্তায় পুলিশি অনুমতি ছাড়া সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ আছে।’

পিরোজপুর : জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা গতকাল সকালে শহরের পোস্ট অফিস সড়কে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশের বাধার মুখে পড়ে। পরে নেতারা দলীয় কার্যালয়ে ঢুকতে গেলেও তাদের বাধা দেওয়া হয়। এ সময় জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আলমগীর হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ শহিদুল্লাহ শহীদ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুল ইসলাম কিসমত, সহসাধারণ সম্পাদক মির্জা জহুরুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ঝালকাঠি : শহরের ফায়ার সার্ভিস সড়কে গতকাল সকালে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি মোস্তফা কামাল মন্টু, সাধারণ সম্পাদক মনিরুল ইসলাম নূপুর ও সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান খান বাপ্পি।

সিরাজগঞ্জ : দলীয় কার্যালয়ের সামনে গতকাল সকালে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী অংশ নেয়। দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মোকাদ্দেছ আলীর সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য দেন সাইদুর রহমান বাচ্চু, মজিবর রহমান লেবু, আজিজুর রহমান দুলাল ও শামীম খান।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ : মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশিদ হারুন, জেলা বিএনপির সহসভাপতি নুরুল ইসলাম সেন্টু, সদর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক তাশেম আলী, আনোয়ার হোসেন, মীর ফজলে আজিম প্রমুখ। গতকাল সকালে জেলা আইনজীবী সমিতির সামনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।

ফরিদপুর : পৌরসভার সামনের মুজিব সড়কে গতকাল সকালে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি জহিরুল হক শাহাজাদা মিয়া, সহসভাপতি আজম খান, মাজেদ মিয়া, এ বি এম রায়হান, মো. কায়েস প্রমুখ।

মেহেরপুর : জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুণের নেতৃত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য দেন সহসভাপতি আব্দুর রহমান, শেখ সাঈদ আহমেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস, গাংনী উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু, সাইফুল ইসলাম, জুলফিকার আলী ভুট্টো, আ. রহিম, আবু সুফিয়ান হাবু প্রমুখ। 

হবিগঞ্জ : বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সমবায়বিষয়ক সম্পাদক জি কে গউছের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে জেলা বিএনপির সহসভাপতি শামছু মিয়া চৌধুরী, মঞ্জুর উদ্দিন আহমেদ শাহীন, নুরুল ইসলাম, এস এম বজলুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। গতকাল সকালে হবিগঞ্জ পৌরসভার সামনে থেকে শায়েস্তানগর পর্যন্ত মানববন্ধনটি করা হয়। অন্যদিকে জেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন সেলিমের নেতৃত্বে শহরের ঢাউন হল মসজিদ রোডে আলাদা মানববন্ধন হয়েছে। এ সময় আজিজুর রহমান আজিজ, দেলোয়ার হোসেন দিলু, তুষার চৌধুরীসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।



মন্তব্য